সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০২:১০ পূর্বাহ্ন

আদালতের ভুয়া ডিগ্রি দেখিয়ে জমিদখলকারী উল্লাপাড়ার ভুমিদুস্য সৈয়দ আলী আটক

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
  • সময় কাল : মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১
  • ৩৬ বার পড়া হয়েছে

আরএস খতিয়ান টেম্পোরি ও কোর্টের স্যুট রেজিষ্টার জালিয়াতির মাধ্যমে হিন্দু সম্প্রদায়ের জমি দখলের অভিযোগে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার কুখ্যাত ভুমিদুস্য সৈয়দ আলীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভুক্তভোগী শ্রী নরেশ চন্দ্র সরকারের দায়ের করা মামলায় সিরাজগঞ্জ সিআইডি পুলিশ সৈয়দ আলীকে নিজগ্রাম খাদুলী থেকে তাকে আটক করেন। আটক সৈয়দ আলী খাদুলী গ্রামের মৃত রাজাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে। বর্তমানে আটক সৈয়দ আলী তিনদিনের রিমান্ডে সিআইডি হেফাজতে রয়েছে।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বড়পাঙ্গাসী ইউনিয়নের খাদুলী গ্রামের মৃত বিন্দাবন সরকারের ছেলে শ্রী নরেশ চন্দ্র ও নরোত্তম চন্দ্র সরকার নানীর থেকে পাওয়া ৫৪ শতক জমি ভোগ করছিল। ২০০৯ সালে একই গ্রামের মৃত রাজাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে সৈয়দ আলী ও তার সহযোগীরা ৫৪শতক জমি নিজেদের দাবী করে দখল করে। পরবর্তীতে স্থানীয় তহশিল অফিস হতে নরেশ চন্দ্র প্রিন্ট পর্চা তুলে দেখেন নানীর প্রিন্টের লেখা নামে ভুমিদস্যু সৈয়দ আলীর পিতার নাম রাবার স্ট্যাম্প সিল আকারে ছাপা মারা রয়েছে।

এঅবস্থায় সাইফুল ইসলামের নাম বাতিলের জন্য দেওয়ানী মামলা দায়ের করেন। যার নং ২৪৫/০৯। এ মামলায় সৈয়দ আলীসহ তার সহযোগীরা কোর্টের অসাধু কর্মচারী দ্বারা জালিয়াতি মাধ্যমে তৈরী করা উল্লাপাড়া সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের অপর প্রকার মামলা নং৪২২/৮৩ এর স্যুট রেজিস্টার দাখিল করে মামলার জবাব দাখিল করেন। দীর্ঘ ৭/৮ বছর চেষ্টার পর অপর প্রকার মামলা ৪২২/৮৩ মুল নথির জাবেদা নকল উত্তোলন করে দেখতে দেখা যায় ওই মামলার আসামী ও বাদী সম্পন্ন ভিন্ন। মুলত ভুমিদস্যু সৈয়দ আলী অন্য ব্যক্তির মামলার নথির স্যুট রেজিস্টার নম্বর জালিয়াতি করে ব্যবহার করেছে। এ ঘটনায় গত ৬মার্চ উল্লাপাড়া থানায় ৪৬৫/ ৪৬৬/৪৬৭/ ৪৬৮/৪৭১/৪২০/১০৯ মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-৯, তারিখ-৬-৩-২০২১। এ মামলা সৈয়দ আলীকে সিআইডি তাকে গ্রেফতার করেন।

অভিযোগে আরো উল্লেখ একই কায়দায় চাকসা গ্রামের মৃত বাসা প্রামানিকের ছেলে মন্তাজের ৮৮ শতাংশ দখল করেছে। এছাড়াও ভুমিদুস্যু সৈয়দ আলী ও তার সহযোগীরা সিলপ্যাড-টেম্পোরিং করে সরকারের মালিকাধীন প্রায় ৩১ একর সম্পত্তি দখল করেছে। এ ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি দেওয়ানী ও ফৌজদারী মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ভুমিদস্যু সৈয়দ আলীর দখল বাণিজ্য ও নির্যাতনের শিকার শতশত মানুষ তার গ্রেফতারে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং ভুমিদুস্য সৈয়দ আলীর দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেছেন।

মামলার বাদী নরেশচন্দ্র সরকার জানান, মামলায় সৈয়দ আলী গ্রেফতারের পরই তার সহযোগী ও চাচা আবু সিদ্দিক ওরফে হুকুম আলী ও সাহাব উদ্দিন মামলা তুলে নেয়ার হুমকি প্রদান করছে। এমনকি গত ২২ মে খাদুলী বাজারে তাকে গলাচিপে হত্যার চেষ্টা করে। আর মামলা না তুললে একেবারে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগও করা হয়েছে।

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102