বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১২:১৯ অপরাহ্ন

ইউটিউব জগতে সফল নির্মাতার গল্প!লালমনিরহাটের পাভেল ভাই!

কলমের বার্তা ডেস্ক
  • সময় কাল : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট : নেট দুনিয়ায় তোলপাড় এখন মোঃ পাভেল খানের ভিডিও নিয়ে। পুরো নাম পাভেল খান হলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ইউটিউব জগতে “পাভেল ভাই” নামেই তিনি সর্বাধিক পরিচিত। পাভেল ভাই ডিজিটাল সুযোগের দিকে তরুণদের অগ্রসর করছেন। আমাদের অবশ্যই “সুযোগ” কীভাবে ধরে রাখতে হবে তা জানতে হবে।“সবাইকে নিজের উপর আস্থা রাখতে হবে এবং অন্বেষণ কখনও থামানো যাবে না,তাহলেই কৃত কাজে সাফলতা আসবে” আমরা এই তরুণ ভদ্রলোকের কাছ থেকে তাই শিখি। তিনি ১৫ বছর বয়সে ইউটিউবিং এবং ডিজিটাল স্রষ্টার জগতে পদার্পণ করেন এবং সম্প্রতি এসবে বিশেষজ্ঞ হয়েছেন। তার জন্য তাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। যা তাকে আরও বেশি যুগোপযোগী করে তুলেছে এবং প্রযুক্তির পরিবর্তনের সাথে সর্বদা আপডেট হতে সাহায্য করেছে।

তিনি আমাদের শিখিয়েছেন কিভাবে সম্ভাব্য সুযোগ কাজে লাগানোর জন্য পুস্তত থাকতে হয়, কিভাবে নিজেকে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে মানব থেকে মানবসম্পদে রুপান্তরিত হতে হয়। পাভেল ভাই খুব অল্প সময়ে প্রচুর জনপ্রিয়তা অর্জনের শীর্ষে আছেন। তিনি এমন একজন অভিনেতা যিনি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। নাম: মোঃ পাভেল খান। ডাকনাম (পাভেল ভাই) তিনি লালমনিরহাট সদর জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি জন্মগ্রহণ করেছেন পহেলা সেপ্টেম্বর, ২০০১ সালে। ২০১৫ সালে তিনি রাজশাহীতে এসে ছিলেন। তারপরে সময়ের সাথে সাথে তিনি নিজেকে নিযুক্ত করেন বিভিন্ন অভিনয়ে। এখন তার অভিনয় দিয়ে তিনি সহজেই মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত তিনি ৩০ টিরও বেশি মিউজিক ভিডিও শর্ট ফিল্মে অভিনয় করেছেন। তিনি একজন দুর্দান্ত ডিজিটাল স্রষ্টা, প্রভাবক এবং উদ্যোক্তা। তিনি বাংলাদেশী তরুণ প্রজন্মের কাছে খুব বিখ্যাত। তার কাজ ইতিপূর্বে লক্ষ লক্ষ ভিউ ছাড়িয়েছে। মূলত তিনি তার আঞ্চলিক ভাষায় ভিডিও তৈরি করেছেন। যা মানুষকে তার প্রেমে পড়তে বাধ্য করেছে। পাভেল ভাই বলেনঃ “আমি দীর্ঘদিন ধরে আমার স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার চেষ্টা করছি।

আমি মনে করি ভিডিও তৈরীর মাধ্যমেও সমাজের বিভিন্ন অসংগতি ও দূর্ণীতিগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা যায়। যা আমি চেষ্টা করেছি। আমি লক্ষ্য করেছি যে অনেকেই আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিল তবে আমি জানতাম, আমি যদি সঠিক এবং সেরাটি তৈরি করতে চাই তবে আমার অন্যের খারাপ মন্তব্যগুলোকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়ে সামনে এগোতে হবে এবং আমার মন কি করতে চায় তা দেখতে হবে। অন্যের খারাপ মন্তব্যগুলোকে কখনো নেতিবাচক হিসেবে নিয়ে আত্মবিশ্বাস হারানো যাবে না। আমি দেখতে চেয়েছিলাম আমার আকাঙ্খাগুলি আমাকে কতদূর নিযয়ে যেতে পারে এবং এখন পর্যন্ত মানুষেরভালোবাসা অর্জন করেই চলেছে আমার কাজগুলো। ইনশাআল্লাহ খুব দ্রুতই আমি সফলতার শীর্ষে থাকব।” আশরাফুল হক, লালমনিরহাট।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102