সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কোনাবাড়ীতে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক ঠাকুরগাঁওয়ে দুইদিন ব্যাপী শিশু সাংবাদিকদের কর্মশালা শুরু লালমনিরহাট পাটগ্রামে দুই রোহিঙ্গা আটক গাজীপুরে নিখোঁজের ৫ দিন পর যুবকের লাশ উদ্ধার সন্ত্রাসীর চুরিকাঘাতে সাংবাদিক অশোক দাস গুরুতর আহত কাজিপুরের চরাঞ্চলে মাদক সন্ত্রাস বিরোধী মিছিল ও সমাবেশ করেছে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল ৩ ঘন্টা পর উল্লাপাড়ায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রূপগঞ্জে সেজান জুস কারখানায় অগ্নিকান্ডে নিহত ও আহতদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে স্কপ এর শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান অনুশীলনে ফিরেছেন ড্যাসিং ওপেনার তামিম ইকবাল জয়পুরহাট র‍্যাব ৫ এর হাতে বগুড়াতে ১১ কেজি গাঁজাসহ ৫ জন গ্রেফতার

উন্নয়নের ছোঁয়ায় বদলে যাচ্ছে বাঙ্গালা ইউনিয়নের দৃশ্যপট

নিজস্ব প্রতিনিধি :
  • সময় কাল : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১
  • ৪২১ বার পড়া হয়েছে
মুজিববর্ষে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বাঙ্গালা হবে মডেল ইউনিয়ন। বর্তমান সরকারের ব্যাপক উন্নয়নে সম্পূর্ণ বদলে গেছে বাঙ্গালা ইউনিয়নের দৃশ্যপট। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা মোতাবেক গ্রামকে শহরে পরিণত করার জন্য সরকারী সম্পদের শতভাগ সুষম বণ্টন, পরিকল্পিত রাস্তা, ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মাণ, শতভাগ ভিক্ষুক মুক্তকরণ,সড়কে বাতি স্থাপন,সড়কে বৃক্ষরোপণ, স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্যখাতে উন্নয়ন, কৃষকদের সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদান, পরিচ্ছন্ন হাট-বাজার, শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে অগ্রগতি, অপরাধ প্রবণতা কমিয়ে আনা, শতভাগ বিদ্যুতায়নসহ স্বচ্ছ এবং জবাবদিহিতার মাধ্যমে ন্যায়ভিত্তিক সমাজ গঠনের মাধ্যমে বাঙ্গালা ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। বাঙ্গালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা সোহেল বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ করায় মুজিববর্ষ গোল্ডেন এ্যাওয়াড,শেরে-বাংলা গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ড,স্বাধীনতা গোল্ড এ্যাওয়াড,জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মৃতি সম্মাননা,অমর একুশে স্মৃতি সম্মাননাসহ শতাধিক ক্রেষ্ট পদক লাভ করেছেন।
স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম এমপির স্নেহধন্য বাঙ্গালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহেল রানা সোহেল বলেন, উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে মুজিববর্ষের মধ্যেই পুরো ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করা হবে। সোহেল রানা সোহেল ১৯৯১ইং হতে ১৯৯৩ ইং সাল পর্যন্ত সিরাজগঞ্জের তাড়াশ ডিগ্রি কলেজের সভাপতি,১৯৯৪ হতে ১৯৯৫ ইং সাল পর্যন্ত সরকারি আকবর কলেজ ছাত্র সংসদ এর প্রো.ভি.পি,১৯৯৭ হতে ১৯৯৯ইং সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার সহ-সভাপতি,২০০৩হতে ২০০৪ইং সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ উল্লাপাড়া উপজেলার শাখার আহবায়ক,২০০৪ হতে ২০১৮ইং সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ উল্লাপাড়া উপজেলা শাখার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি,২০১২ হতে ২০১৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বাঙ্গালা ইউনিয়ন শাখার সদস্য,২০১৬ সালে ২নং বাঙ্গালা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নৌকা মার্কা প্রতিক নিয়ে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন,২০১৯ সালে ২নং বাঙ্গালা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সভাপতি ও ২০১৯ সালে উল্লাপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন।
চেয়াম্যান সোহেল রানা সোহেল বলেন, সিরাজগঞ্জ-৪ (উল্লাপাড়া-সলঙ্গা) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম এর পরিকল্পনায় ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে বাঙ্গালা ইউনিয়নের কৃষি উৎপাদন, শিক্ষা-স্বাস্থ্য, দারিদ্র্যমুক্তি ও গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে নানামুখী পরিকল্পনা গ্রহণ করেন। পাশাপাশি সরকারী সম্পদের সুষম বণ্টনের মাধ্যমে পুরো ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেন। ইউনিয়নবাসীর মধ্যে দারিদ্র্যতা দূরীকরণের জন্য সরকারী নির্দেশন মোতাবেক খানা জরিপের মাধ্যমে দরিদ্র পরিবারগুলোকে চিহ্নিত করে সরকারী ভিজিডি, ভিজিএফসহ বিভিন্ন সামাজিক ভাতা দরিদ্র পরিবারগুলোর মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচীসহ সরকারী বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থের সুষম বণ্টনের মাধ্যমে বাঙ্গালা ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা মোতাবেক গ্রামকে শহরে পরিণত করার জন্য গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ইউনিয়নের চলাচলে অনুপযোগী গ্রামীণ সড়কগুলোকে মাটি কেটে বর্ধিতকরণের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। যার সুফল ভোগ করছে এলাকার বাসিন্দারা।
ভিক্ষুক মুক্তকরণ-সরকার সারাদেশে ভিক্ষুকমুক্ত ঘোষণা করার পর বাঙ্গালা ইউনিয়নের মধ্যে সর্বপ্রথম ভিক্ষুকমুক্ত ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল রানা সোহেল। ইউনিয়নের ভিক্ষুক পরিবারের মাঝে ভিজিডি, ভিজিএফ, সরকারী ভাতা প্রদান ও চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত অর্থায়নের মাধ্যমে পুনর্বাসন এবং কর্মসংস্থানের আওতায় আনা হয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি দরিদ্র পরিবারের প্রতি ইউপি চেয়ারম্যানের সু-দৃষ্টি থাকায় ইউনিয়নে দারিদ্রত্যা কমে এসেছে।
সড়কে বাতি স্থাপন ॥ গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে শহরের আধুনিক সুবিধা দেয়ার জন্য ইউনিয়নের সড়কগুলোতে আধুনিক রোড ল্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে গ্রামীণ সড়কের গুরুত্বপূর্ণস্থান ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে বাতি স্থাপন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে পুরো ইউনিয়নের সড়কগুলোতে বাতি স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে।
বৃক্ষরোপণ- জলবায়ুর পরিবর্তন মোকাবেলাসহ বজ্রপাত থেকে রক্ষায় ইউনিয়নের গ্রামীণ সড়কে বিভিন্ন ফলদ ও বনজ, শোভাবর্ধনকারী বৃক্ষ রোপণ করা হয়েছে। স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্য-গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের জন্য ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করে তা শতভাগ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
ইতোমধ্যে ইউনিয়নে সরকারী-বেসরকারীভাবে হাজারো গভীর নলকূপ স্থাপন, দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে রিং, ¯øাব বিতরণ ও হাটবাজারে আধুনিক গণল্যাট্রিন নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া ইউনিয়নবাসীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণের কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোকে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেয়ার ফলে ইউনিয়নের কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোকে মডেল হিসেবে পরিচিত হয়েছে।
কৃষকদের সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদান-সরকারী প্রণোদনাগুলো কৃষকদের মাঝে সঠিকভাবে বিতরণসহ কৃষকদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। কৃষকদের রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে এনে ভার্মি কম্পোস্ট ব্যবহার করতে প্রতিনিয়ত উৎসাহ প্রদান করা হচ্ছে।
ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মান- দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং এলজিএসপি প্রকল্পের মাধ্যমে ইতোমধ্যে ইউনিয়নে বিভিন্ন স্থানে কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। পরিচ্ছন্ন হাটবাজার -হাটবাজারগুলোকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত ও ইউনিয়ন পরিষদের অর্থায়নে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা হয়েছে।
ফলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হাট ও বাজারে রূপান্তরিত হয়েছে ইউনিয়নের হাট বাজার। এছাড়াও সাংস্কৃতিক চর্চা বিস্তারের জন্য ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করে তা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের নিজস্ব অর্থায়নে স্কুলে স্কুলে গড়ে তোলা হয়েছে মুজিব কর্নার। নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ছড়িয়ে দেয়ার জন্য সম্প্রতি ইউনিয়নের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত অর্থে পুরস্কার হিসেবে বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মুক্তিযুদ্ধের বই বিতরণ করা হয়েছে।
অপরাধ প্রবণতা হ্রাস- গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর ছোট-বড় অপরাধগুলোকে নিয়ন্ত্রণ ও পারিবারিক বিরোধ নিষ্পত্তি করার জন্য গ্রাম আদালতকে সক্রিয় করা হয়েছে। ইতোমধ্যে যার সুফল ভোগ করছে গোটা ইউনিয়নের বাসিন্দারা।
২নং বাঙ্গালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা সোহেল বলেন,আমি ২০১৬ সালে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর তানভীর ইমাম এমপি মহোদয়ের দিকনির্দেশনায় ইউনিয়নের সকল উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে বাঙ্গালা ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করবো ইনশাআল্লাহ।
Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102