শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৬:৪১ অপরাহ্ন

উল্লাপাড়ায় সংযোগ সড়ক না থাকায় কাজে আসছে না ৫৪ লাখ টাকার নির্মিত সেতু

আল-আমিন,উল্লাপাড়া
  • সময় কাল : বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৪৯ বার পড়া হয়েছে

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় সংযোগ সড়ক না থাকায় কাজে আসছে না ৫৪ লাখ টাকার নির্মিত সেতু। উপজেলার পঞ্চক্রোশী ইউনিয়নের পূর্ব সাতবাড়ীয়া গ্রামে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের আওতায় ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে সেতুটি নির্মান করা হয়।

কিন্তু সেতু নির্মাণের কয়েক বছর পেরিয়ে গেলেও হয়নি সংযোগ সড়ক। ফলে সেতু দিয়ে মানুষ কোনও রকমে পার হলেও যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।
মানুষের চলাচল সেভাবে না থাকায় কৃষকরা সেতুটি ধান শুকানোর কাজে ব্যবহার করছেন। আর বর্ষা মৌসুমে একেবারেই চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সেতু থাকা সত্বেও নৌকা দিয়ে পারাপার হতে হয় জনগনের।
পূর্ব সাতবাড়ীয়া গ্রামের বাসিন্দা হেলাল ও রুবেল জানান,সেতু উদ্বোধনের সময় দু’পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণের জন্য ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয় । প্রতিশ্রুতি না রাখার ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এই সেতু দিয়ে প্রতিদিন চলাচলরত প্রায় ১০ হাজার মানুষ।বিশেষ করে প্রসূতিদের হাসপাতালে নিতে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। পূর্ব-সাতবাড়ীয়া থেকে হেঁটে চর সাতবাড়ীয়া গিয়ে সেখানে পাওয়া যায় যানবাহন। আর এই প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে উল্লাপাড়া শহরে যাওয়ার এটাই প্রধান রাস্তা।
কৃষক আমিরুল মোস্তাকিন বলেন, আমাদের এলাকার ৮০ শতাংশ মানুষ কৃষি কাজ করে থাকেন। আর এই মৌসুমী ফসল গুলো উপজেলা সদরসহ জেলায় নিয়ে যাওয়া হয়।
সেতুটি ব্যবহার করতে না পারায় চরম দূর্ভোগে পরতে হয় আমাদের। সংযোগ সড়ক না থাকায় যানবাহন চলাচল বিঘ্ন হচ্ছে।
ফলে সময় ও অর্থ দুটোই অপচয় হচ্ছে। এতে করে ফসল উৎপাদন খরচও বেড়ে যাচ্ছে। সেই তুলনায় মূল্য পাচ্ছেন না কৃষকরা। ফলে অনেক কৃষকই মৌসুমী ফসল উৎপাদন করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন।
আর বিশেষ রামকান্তপুর,চরসাতবাড়ীয়া,বেতবারী,সাতবাড়ীয়া,বেতকান্দী,লক্ষীপুর সহ আশেপাশের গ্রামের লোক জনের উল্লাপাড়া শহরে যাওয়ার এটাই মুল সড়ক। বর্ষা মৌসুমে সেতু থাকা সত্বেও নৌকা দিয়ে পারাপাড় হতে হয় এসব এলাকার মানুষের। তাই সেতুটির সংযোগ সড়ক নির্মান করা হলে এলাকার জনগনের দূর্ভোগ একটু হলেও লাঘব হবে।

এবিষয়ে পঞ্চক্রোশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তৌহিদুল ইসলাম ফিরজ বলেন অতিদ্রুত সংযোগ সড়কের দুইপাশে মাটি ফেলা হবে |

উল্লাপাড়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইঞ্জিনিয়ার মাহবুবুর রহমান বলেন, এর আগে সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হলেও বর্ষার কারনে নষ্ট হয়ে গেছে। তবে খুব দ্রুতই ১০-১৫ দিনের মধ্যে সেতুটির সংযোগ সড়ক নির্মান করা হবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102