মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১১:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জে রক্ত কণিকা ব্লাড ডোনেশন এর ঈদ সামগ্রী বিতরণ মানবিক সহায়তা পেল ১ হাজার দরিদ্র ও দুঃস্থ পরিবার আমবাড়ীতে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে উদ্বোধন এমপি উল্লাপাড়া-সলঙ্গা ও রামকৃষ্ণপুর বাসীকে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন হিরো চেয়ারম্যান ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানালেন সভাপতি-সম্পাদক ছাত্রলীগে এর প্রথম সভাপতি দবিরুল ইসলামের প্রতিকৃতি স্থাপনের জন্য স্মারকলিপি প্রদান শাহজাদপুরে সাবেক এমপি চয়ন ইসলাম ও এ্যাড. আব্দুল হামিদ লাবলু’র ঈদ সামগ্রী বিতরণ শাহজাদপুরে উই উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে দুঃস্থ তাঁতীদের মাঝে ঈদ সামগ্রী ও ইফতার বিতরণ প্রত‍্যাশিত  সিরাজগঞ্জের” উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ জাগ্রত ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে শতাধিক পথশিশুদের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ

কাশিমপুরে চাঁদা চাইতে গিয়ে শ্রমিকদের তোপের মুখে ওয়ার্ড কাউন্সিলর

গাজীপুর প্রতিনিধি
  • সময় কাল : রবিবার, ২ মে, ২০২১
  • ১১৭ বার পড়া হয়েছে
গাজীপুরের কাশিমপুরে কেএসি ফ্যাশন নামক একটি কারখানায় চাঁদা চাইতে গিয়ে শ্রমিকদের তোপের মুখে পড়েছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশন এর ২নং  ওয়ার্ড কাউন্সিলর
মোঃ মোন্তাজ হোসেন মন্ডল। রবিবার ২ মে বিকালে কাশিমপুর থানাধীন  জিরানি বাজারের তেতুইবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
মোন্তাজ হোসেন মন্ডল কাশিমপুরের লতিপপুর
এলাকার সাইদুর রহমানের ছেলে। তিনি ২০১৮ সনে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২ নং ওয়ার্ড থেকে বিএনপি সমর্থিত পার্থী হয়ে জয়লাভ করেন।
বিতর্কিত ওই কাউন্সিলর মোন্তাজ  হোসেন মন্ডল
অর্ধশতাধিক তার লোকজন নিয়ে কারখানার ভিতরে জোর পূর্বক ঢোকার চেষ্টা করেন। পরে মেইন ফটকে দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তা কর্মীরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ভিতরে প্রবেশ করতে নিষেধ করেন।
এসময় কাউন্সিলরের লোকজন একজন নিরাপত্তাকর্মীকে মারধর করেন। নিরাপত্তা কর্মীরা কাউন্সিলরকে আটক করে একটি কক্ষে বসিয়ে রাখেন।  কাউন্সিলর মোন্তাজ হোসেনকে আটকের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আরো শতাধিক সমর্থক ঘটনাস্থলে গিয়ে কারখানার সামনে থাকা ৪-৫ দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেন। এসময় কারখানার গেইটে গিয়ে হামলা চালালে কারখানায় কর্মকর্তা দুই শতাধিক শ্রমিক গেইটে এসে বাহিরে গিয়ে কাউন্সিলর মোন্তাজ হোসেন মন্ডলের সর্মথকদের ধাওয়া দেন।  উভয় গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে উভয় গ্রুপের মধ্যে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়। আহতদেও উদ্ধার করে স্থানীয়  একটি ক্লিনিকে  প্রাথমিক চিকিৎসা  দিয়েছেন।
কারখানার শ্রমিকরা জানান, কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে কাউন্সিলরের দাবিকৃত মোটা অংকের চাঁদা নিতে আসে। পরে গেইটের নিরাপত্তাকর্মীরা বাধা দিলে একজন নিরাপত্তাকর্মীকে মারধর করেন। পরে কাউন্সিলরের শতাধিক নেতাকর্মী কারখানায় এসে হামলা ভাংচুর করে।
কেএসি ফ্যাশন লিমিটেড নামক কারখানার
এইচ আর ডিপার্টমেন্টে এর কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান মূলত সে চাঁদার জন্যই এসেছিলো।
পরে পুলিশ এসে উভয় পক্ষকের মধ্যে সমঝোতা
করে দেয়।
গাজীপুর সিটি করপোরেশন অঞ্চল ৮ এর সভাপতি আসাদুজ্জামান খাঁন  তুলা জানান,এবিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নই। বিস্তারিত জেনে পরে জানানো যাবে।
অভিযুক্ত কাউন্সিলর মোন্তাজ  হোসেন মন্ডল  এই প্রতিবেদককে বলেন, কারখানা কতৃপক্ষের সাথে ভুলবোঝাবুঝি হয়েছে। রাতে কারখানা কর্তৃপক্ষ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের লোকজন নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়েছে।
কাশিমপুর জিএমপি  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) মাহবুবে  খোদা জানান, ভিতরে ঢুকা নিয়ে উভয় গ্রুপের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিলো।  রাতেই কারাখানায় দুইপক্ষ বসে মীমাংসা করেছে বলে শুনেছি। এঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ  অভিযোগ   নিয়ে আসেনি।
Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102