বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন

গাজীপুরে স্ত্রীর মর্যাদা চায় জান্নাত আরা বর্ষা

Reportar Name
  • সময় কাল : রবিবার, ২১ জুন, ২০২০
  • ১৬৬ বার পড়া হয়েছে


মোঃ মোখলেছুর রহমান স্টাফ রিপোর্টার :

গাজীপুরে স্ত্রীর মর্যাদার দাবীতে শশুড় বাড়ীতে অবস্থান নিয়েছে জান্নাত আরা বর্ষা নামের এক নববধূ। ঘটনাটি ঘঠেছে গাজীপুর মহানগরীর পূবাইল থানাধীন মারুকা নামক এলাকায়।
শুক্রবার (১৯ জুন) তিনি শশুড় বাড়ীতে অবস্থান নেন। এসময় তাকে দেখে স্বামীসহ শশুড় বাড়ীর লোকজন পালিয়ে যায়।
মেয়ের পারিবারিক সূত্রে জানা যায় চলতি বছরের (২০২০ইং) মে মাসের ৯ তারিখে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় গাজীপুরের পুবাইল থানার মারুকা নামক এলাকার মোঃ মনির হোসেনের একমাত্র ছেলে রাইসুল ইসলামের(২৫) সঙ্গে জান্নাত আরা বর্ষার। বিয়েতে ২ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্য করা হয় উপস্থিত সবার সামনে।
বিয়ের একমাস যেতে না যেতেই জান্নাত আরা বর্ষার জীবনে নেমে আসে ঘোর অন্ধকার। যৌতুকের টাকার দাবীতে তার উপর চলতে থাকে স্বামীসহ শশুড় শাশুড়ির অত্যাচারের স্টিম রুলার। এ যেন জাহিলায়ার যুগকেও হারমানায়। বিয়ের পর স্বামীকে নিয়ে বাপের বাড়ীতেই থাকতো বর্ষা।
বর্ষা জানায় রাইসুলের সাথে প্রথম পরিচয়েই
প্রেম হয়, মোবাইল ফোনে চলতে থাকে তাদের ভালোবাসার কথা। রাইসুল প্রেমের সুযোগে তার সাথে গড়ে তোলে শারীরিক সম্পর্ক। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয় তাদের। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই যৌতুকের টাকার জন্য চাপ দিতে থাকে রাইসুলেরসহ তার পরিবার। জান্নাত আরা বর্ষা আরো জানায় আমার বাবা গার্মেন্টস কর্মী তাদের হাতেও নগদ কোন টাকা নেই। তারপরও আমার বাবা মা ধারদেনা করে দুই বারে ২০ হাজার টাকা দিয়েছে। কিন্তু টাকার চাহিদা স্বামী ও তার পরিবারের কাছে হার মেনেছে আমার ভালোবাসা। বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) আমাকে মারধোর করে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায় রাইসুল। পরে উপায় না দেখে শশুড় বাড়ীতে অবস্থান নেই।
এ বিষয়ে জানতে রাইসুল ও তার পরিবারের সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ফোন বন্ধ থাকায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সালাম জানান, আমি ছেলের বাবা মার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। যেন একটা সুষ্ঠু সমাধান দেওয়া যায়।
৪৬,৪৭,৪৮ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হামিদা বেগম জানান, কয়েকবার রাইসূলের পরিবারকে গৃহবধূ নির্যাতনের বিষয়ে সতর্ক করা হলেও তারা একঘেঁয়েমি করছে। তিনি বলেন,যৌতুকের দাবীতে গৃহবধূ নির্যাতনের দায়ে তাদের কঠিন শাস্তি হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102