বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৭:২৯ পূর্বাহ্ন

চকরিয়া-পেকুয়া এমপি জাফরকে জেলা’আলীগের অব্যাহতি কতটুকু বৈধ?

মিসবাহ ইরান কক্সবাজার,
  • সময় কাল : শনিবার, ১২ জুন, ২০২১
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভায়,সংসদ সদস্য জাফর আলমকে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।তবে জেলা আ’লীগ উক্ত সভায় সাংবাদিকদের অভিযুক্ত সাংসদ জাফরকে অব্যাহতি দেওয়য়ার আগে কারণ দর্শানোর কোন সুযোগ দিয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করেনি!শৃংখলা ভঙ্গের বিষয়ে “বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ: ঘোষণাপত্র ও গঠনতন্ত্র”এর ৪৭ এর (ঙ) (চ) ও (ছ) ধারা অনুযায়ী অব্যাহতি দেওয়া যায়। তবে অব্যাহতি দেওয়ার আগে এমপি জাফরকে শৃংখলা ভঙ্গের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ার বিধান থাকলেও তা করেনি জেলা আওয়ামীলীগ এমনটাই দাবি করেন অভিযুক্ত সাংসদ জাফর ।এছাড়া অনেকেই মনে করছেন অব্যাহতি মানে আ’লীগ থেকে বহিঃস্কার!তবে গঠনতন্ত্রে বলা হয়েছে কাওকে চুড়ান্তভাবে বহিঃস্কারের সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় কমিটির হাতে ন্যস্ত থাকবে ।তবে এমপি জাফর কারণ দর্শানোর বিষয়টি অস্বীকার করলেও জেলা আ’লীগ এর আগেও দুইবার কারন দর্শানোর নোটিশ দিলেও জবাব দেয়নি বলে জানান।বিস্তারিত দলের গঠনতন্ত্রের ধারাগুলো দেওয়া হলোঃ ৪৭. প্রাতিষ্ঠানিক শৃঙ্খলা-(ঙ) শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে কারণ দর্শাইবার জন্য সুযোগদানের উদ্দেশ্যে যুক্তিসংগত সময় দিয়া সাধারণ সম্পাদক পোস্টাল রেজিস্ট্রেশনযোগে নোটিস দিতে বাধ্য থাকিবেন।(চ) সংগঠনের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে শাস্তি প্রদানের জন্য আওয়ামী লীগের নিম্নতম যে কোনো শাখা বা যে কোনো সদস্যের লিখিত অভিযোগপত্র পাওয়ার পর উপজেলা/থানা আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদ নিজেদের সিদ্ধান্তসহ উক্ত অনুরোধপত্র জেলা কার্যনির্বাহী সংসদের নিকট পাঠাইবেন। জেলা কার্যনির্বাহী সংসদ এ সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিয়া উক্ত বিষয় বিবেচনাপূর্বক চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদের নিকট প্রেরণ করিবেন। ইহা ছাড়া জেলা আওয়ামী লীগ স্বয়ং সংগঠনের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আবশ্যকতা বোধ করিলে জেলা কার্যনির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্ত জ্ঞাপন করিয়া বিষয়টি বিবেচনাপূর্বক চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদের নিকট প্রেরণ করিবে। (ছ) প্রতিষ্ঠানের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করিবার ক্ষমতা কেবল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদের থাকিবে। তবে এক্ষেত্রে ধারা ১৭(চ)-এর ব্যত্যয় ঘটিবে না।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102