শিরোনামঃ
আশুলিয়ায় জাতীয় শ্রমিক লীগের মে দিবসের প্রস্তুতি সভা লালমনিরহাটে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের গ্রাহক সমাবেশ রায়গঞ্জে শিক্ষা বিষয়ক গ্লোবাল অ্যাকশন সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কাজিপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ যুদ্ধের অর্থ জলবায়ু পরিবর্তনে ব্যয় হলে বিশ্ব রক্ষা পেত সিরাজগঞ্জে ৩টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের জন্য প্রতীক বরাদ্দ পেলেন ৩১ জন প্রার্থী অগ্রাধিকার পাচ্ছে বাণিজ্য বিনিয়োগ ও ভূরাজনীতি এমপি পুত্রের হলফনামায় তথ্য গোপন মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি নিতে চায় কিরগিজস্তান গ্যাস খাতে বড় সংস্কার করবে পেট্রোবাংলা মুক্তিযুদ্ধ ও মুজিবনগর সরকার নিয়ে গবেষণার আহ্বান গাজীপুরে ৭ একর বনভূমি উদ্ধার যোগ্যতা ও উন্নয়ন দেখে ভোট দিন-খলিলুর রহমান; কাজিপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন তীব্র তাপদাহ,গাজীপুরে এক দিনে ২৩ ডায়েরিয়া রোগি ভর্তি কালিয়াহরিপুর ইউনিয়নের পাটচাষীদের মাঝে বিনামূল্যে পাটবীজ ও সার বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলাকে আবদ্ধ করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন এপ্রিলের ১৯ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১২৮ কোটি ডলার চালের বিকল্প হিসেবে গম আমদানি করছে সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আয়নুল হক আর নেই এবার ৪৫ টাকা কেজিতে চাল ও ৩২ টাকায় ধান কিনবে সরকার

পুরস্কার পাবেন মাঠ পর্যায়ে ভূমির সেরা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

কলমের বার্তা / ১৩৬ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২

ভূমি মন্ত্রণালয়ের মাঠ পর্যায়ের সেরা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পুরস্কৃত করবে সরকার। এজন্য ‘ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পুরস্কার প্রদান নীতিমালা-২০২২’ করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়। মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কার্যক্রম মূল্যায়নের মাধ্যমে নির্বাচিতদের পুরস্কার দিতেই এই নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। নীতিমালা অনুসরণ করে ভূমি সেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা কর্মীদের প্রতি বছর ভূমি সেবা সপ্তাহে এ পুরস্কার দেওয়া হবে বলে ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মাঠ প্রশাসন) প্রদীপ কুমার দাস বলেন, সততা, দক্ষতা, নামজারি নিষ্পত্তির হার, মিস কেস, নিষ্পত্তির হার, করণিক ভুল নিষ্পত্তির হার, সেবা প্রার্থীদের সঙ্গে ব্যবহার ইত্যাদি নানা মানদণ্ডে মাঠ পর্যায়ে আমাদের কর্মকর্তাদের পুরস্কৃত করার উদ্যোগ নিয়েছি। এজন্য একটি নীতিমালাও করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুরস্কারের জন্য সেরা কর্মকর্তা-কর্মচারী নির্বাচন করা হবে অটোমেটেড প্রক্রিয়ায়। এখানে যোগসাজশ করে কেউ সেরা হয়ে যাবে সে সুযোগ থাকছে না।

‘ভূমির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অপরাধের জন্য আমরা শাস্তি দিচ্ছি। ভালো কাজের জন্য তো পুরস্কার দিতে হবে। সেই উদ্দেশ্যেই মূলত সেরা কর্মী নির্বাচন করে পুরস্কারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে’ বলেন অতিরিক্ত সচিব।

নীতিমালা অনুযায়ী, জেলায় একজন করে ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা, একজন করে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা, একজন করে সার্ভেয়ার ও একজন করে কানুনগো পুরস্কার পাবেন।

এছাড়া জেলায় একজন সহকারী কমিশনার (ভূমি) পুরস্কারের জন্য মনোনীত হবেন। সব জেলার শ্রেষ্ঠদের মধ্যে থেকে বিভাগে একজন এবং সারাদেশে আটজন সহকারী কমিশনার (ভূমি) পুরস্কার পাবেন।

একইসঙ্গে সারাদেশে একজন করে জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার, একজন করে চার্জ অফিসার পুরস্কার পাবেন।

আরও পুরস্কার পাবেন জোনে একজন করে সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার ও একজন করে উপ-সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার এবং একজন করে সেটেলমেন্ট সার্ভেয়ার।

ভূমি প্রশাসন ব্যবস্থাপনা সিস্টেম www.lams.gov.bd এর মাধ্যমে পুরস্কার দিতে কর্মকর্তা নির্বাচন করা হবে। পুরস্কার দেওয়ার জন্য সুপারিশ করার ক্ষেত্রে ১০০ নম্বর বিবেচনা করা হবে। নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণের পরিপ্রেক্ষিতে ভূমি প্রশাসন ব্যবস্থাপনা সিস্টেম থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সেরা কর্মকর্তা নির্বাচিত হবেন বলে নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

পুরস্কার হিসেবে প্রতিক্ষেত্রে সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় পর্যায়ে পুরস্কার হিসেবে সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট দেওয়া হবে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, সেরা সহকারী কমিশনার-ভূমি (এসিল্যান্ড) নির্বাচিত হবে দুটি পর্যায়ে। প্রথম ধাপে জেলা পর্যায়ে ও দ্বিতীয় ধাপে বিভাগীয় পর্যায়ে। প্রথম ধাপে প্রত্যেক এসিল্যান্ডকে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মূল্যায়ন করবেন।

নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণের পরিপ্রেক্ষিতে ভূমি প্রশাসন ব্যবস্থাপনা সিস্টেম থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে জেলা ও বিভাগের সেরা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাচিত হবেন। বিভাগীয় পর্যায়ে যারা নির্বাচিত হবেন কেন্দ্রীয় পর্যায়েও তাদের পুরস্কার প্রদান করা হবে।

সেরা কানুনগো ও সার্ভেয়ার নির্বাচন করা হবে জেলা পর্যায়ে। এক্ষেত্রে জেলার ও উপজেলার কানুনগো ও সার্ভেয়ার অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

উপজেলার ক্ষেত্রে কানুনগো বা সার্ভেয়ার সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এবং উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মূল্যায়ন করবেন। জেলার কানুনগো ও সার্ভেয়ারকে মূল্যায়ন করবেন সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের আরডিসি(রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর)/এলএও (ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা)।

সেরা ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা নির্বাচিত হবেন জেলা পর্যায়ে। ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তাকে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) মূল্যায়ন করবেন।

সেরা জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসারকে মূল্যায়ন করবেন ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, পরিচালক (প্রশাসন), পরিচালক (ভূমি রেকর্ড), পরিচালক (জরিপ)।

সেরা চার্জ অফিসার মূল্যায়ন করবেন ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, সংশ্লিষ্ট জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার, পরিচালক (ভূমি রেকর্ড)। পরিচালক (ভূমি রেকর্ড), জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার ও চার্জ অফিসার সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার মূল্যায়ন করবেন।

উপ-সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার মূল্যায়ন করবেন পরিচালক (ভূমি রেকর্ড), জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার ও চার্জ অফিসার।সার্ভেয়ারদের মূল্যায়ন করবেন জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার, চার্জ অফিসার ও সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, প্রত্যেক কর্মকর্তাকে একাধিক মূল্যায়নকারী কর্মকর্তা মূল্যায়ন করবেন কিন্তু কেউ কারো নম্বর দেখতে পারবেন না। মূল্যায়নকারী কর্মকর্তাদের নম্বরের পার্থক্য যদি বেশি হয় সেক্ষেত্রে স্ট্যান্ডার্ড ডেভিয়েশন ফর্মুলার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোনো মূল্যায়নকারী কর্মকর্তা মাঠ পর্যায়ের আট পদের কর্মকর্তাকে মূল্যায়ন না করলে এবং মূল্যায়নের নির্ধারিত সময় অতিক্রান্ত হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিষয়টি নোটেড হবে।

কোনো বছরের ১ জুলাই থেকে পরের বছরের ১ এপ্রিলের মধ্যে কোনো সহকারী কমিশনার (ভূমি) একাধিক কর্মস্থলে কাজ করলে তিনি সর্বাধিক সময়ে যে কর্মস্থলে কাজ করেছেন সেখান থেকেই তিনি মূল্যায়িত হবেন বলে নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

নীতিমালায় আরও বলা হয়, পুরস্কারের জন্য যেসব কর্মকর্তা নির্ধারিত মূল্যায়নকালে কর্মকাল শেষ করে অন্যত্র বদলি হয়েছেন, তাদের নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তাদের মূল্যায়নের সুবিধার্থে সেসব কর্মকর্তা সিস্টেমে নিষ্ক্রিয় হলেও তিনি ফের সিস্টেমে প্রবেশ করে ‘রিকোয়েস্ট’ এর ভিত্তিতে সক্রিয় হয়ে এই নির্ধারণ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

নীতিমালা অনুযায়ী, কোনো বছরের ১ জুলাই থেকে পরের বছরের ১ এপ্রিলের মধ্যে কোনো মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা তার কর্মক্ষেত্রে চার মাসের কম সময় দায়িত্বে থাকলে তিনি মূল্যায়িত হবেন না।

83


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর