বিদেশে যাতায়াতে ঘোষণা দিয়ে ‘যতখুশি তত ডলার’ নেয়া যাবে

কলমের বার্তা / ১৭৮ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : রবিবার, ১২ জুন, ২০২২

বিদেশে যাওয়া এবং আসার সময় একজন ব্যক্তি ১০ হাজার ডলারের সমপরিমাণ মুদ্রা সঙ্গে রাখতে পারেন। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের কোনো অনুমোদনের প্রয়োজন হয় না। শুল্ক কর্তৃপক্ষের কাছেও ঘোষণা দিতেও হয় না। তবে ১০ হাজার ডলারের বেশি যে কোন অঙ্কের অর্থই দেশে আনানেয়ার এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় অনুমোদন নিতে হতো। এখন থেকে ঘোষণা দিয়ে যতখুশি অর্থ বিদেশে আনা নেয়া করা যাবে।

এমনটি জানানো হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে। বিদেশ মুদ্রা আনায় নেয়ার ক্ষেত্রে আগাম কোনো ঘোষণা দেয়ার প্রয়োজন হবে না। এছাড়া প্রবাসীরা সহজেই দেশের যেকোনো ব্যাংকে বিদেশি মুদ্রার হিসাব খুলতে পারেন। বিদেশ থেকে সেই ব্যাংক হিসাবে যেকোনো পরিমাণ আয় পাঠানোও যায়। আবার বিদেশ থেকে আসার সময় নগদ বিদেশি মুদ্রা আনলে তা-ও ওই হিসাবে জমা রাখা যায়।

বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি এ নিয়ে এক বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছে। জনসাধারণের মধ্যে বিদেশ থেকে টাকা আনা/নেয়া নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ায় সেই বিভ্রান্তি দূর করতেই এ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এছাড়া বিদেশ থেকে যে কোনো পরিমাণ অর্থ পাঠালে কোনো প্রশ্ন করা হবে না। কোনো এক্সচেঞ্জ হাউস এ বিষয়ে কোনো প্রশ্ন করবে না বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটেও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল নির্দিষ্ট করে বলেছেন। একই সঙ্গে যে কোনো পরিমাণ অর্থের বিপরীতে প্রণোদনাও দেয়া হবে। অর্থাৎ পাঠানো অর্থের বিপরীতে আড়াই শতাংশ হারে নগদ প্রণোদনা পাবেন সবাই। এর আগে ৫ হাজার ডলার বা ৫ লাখ টাকার বেশি বৈদেশিক মুদ্রা বা সমপরিমাণ অর্থ পাঠাতে আয়ের নথিপত্র জমা দিতে হতো। এতে বেশি পরিমাণ অর্থ পাঠাতে পারতেন না বিদেশে থাকা বাংলাদেশিরা। এই সিদ্ধান্তের ফলে বিদেশ থেকে অবাধে টাকা আনতে বাধা নেই কারোর। টাকা পাঠানো নতুন এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে বাংলাদেশ ব্যাংক ইতিমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

এছাড়া বিদ্যমান বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন ব্যবস্থায় বিদেশে বসবাসরত প্রবাসী ও অনিবাসী ব্যক্তি এ দেশে যেকোনো ব্যাংকের অনুমোদিত ডিলার (এডি) শাখায় প্রাইভেট বিদেশি মুদ্রার হিসাব বা নন-রেসিডেন্ট বিদেশি মুদ্রার আমানত হিসাব খুলে পরিচালনা করতে পারেন। বিদেশ থেকে পাঠানো বিদেশি মুদ্রা বা বিদেশ থেকে বাংলাদেশে আসার সময় সঙ্গে নিয়ে আসা বিদেশি মুদ্রা এই হিসাবে জমা রাখা যায়। বিদেশ থেকে আসা যাত্রী যেকোনো পরিমাণ বিদেশি মুদ্রা বাংলাদেশে আনতে পারেন। সঙ্গে নিয়ে আসা বিদেশি মুদ্রার পরিমাণ সর্বোচ্চ ১০ হাজার ডলার বা সমতুল্য অন্য মুদ্রা হলে শুল্ক কর্তৃপক্ষের কাছে ঘোষণা প্রদানের প্রয়োজন নেই। এর বেশি যে কোন পরিমান অর্থ আনলে শুল্ক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলেই হবে, অর্থ আনা বা নেয়ার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোন বাধ্যবাধকতা নেই।

103
Spread the love


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর