বুধবার, ১২ মে ২০২১, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মানুষের ভিরে জায়গা নেই শিমুলিয়া ঘাটে সিরাজগঞ্জে রক্ত কণিকা ব্লাড ডোনেশন এর ঈদ সামগ্রী বিতরণ মানবিক সহায়তা পেল ১ হাজার দরিদ্র ও দুঃস্থ পরিবার আমবাড়ীতে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে উদ্বোধন এমপি উল্লাপাড়া-সলঙ্গা ও রামকৃষ্ণপুর বাসীকে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন হিরো চেয়ারম্যান ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানালেন সভাপতি-সম্পাদক ছাত্রলীগে এর প্রথম সভাপতি দবিরুল ইসলামের প্রতিকৃতি স্থাপনের জন্য স্মারকলিপি প্রদান শাহজাদপুরে সাবেক এমপি চয়ন ইসলাম ও এ্যাড. আব্দুল হামিদ লাবলু’র ঈদ সামগ্রী বিতরণ শাহজাদপুরে উই উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে দুঃস্থ তাঁতীদের মাঝে ঈদ সামগ্রী ও ইফতার বিতরণ প্রত‍্যাশিত  সিরাজগঞ্জের” উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ

ভুল রক্ত দেওয়ায় রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন প্রতিবাদে মানববন্ধন

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট
  • সময় কাল : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১
  • ২৬ বার পড়া হয়েছে

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগে চিকিৎসারত রহিমা বেগম নামের এক রোগীর শরীরে “এ পজিটিভ” রক্তের পরিবর্তে “বি পজিটিভ’’ রক্ত দেওয়ায় রোগীর অবস্থা এখন সংকটাপন্ন। জানাযায়, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পরপর দুবার রোগীর শরীরে অন্য-গ্ররুপের রক্ত প্রবেশ করার ফলে রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে গেল ১৫ মার্চ লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে।

এরপর বিষয়টি প্রকাশ হয়ে পড়লে তোলপাড় অবস্থার সৃষ্টি হয় জেলা জুড়ে। এদিকে এমন একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটলেও গেল চার দিনে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দোষীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ গ্রহন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জেলার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। এদিকে ক্ষোভের অংশ হিসেবে স্থানীয় মাহমুদুল হাসান মামুন স্মৃতি সংসদ-সহ আরো তিনটি সামাজিক সংগঠনের উদ্যেগে শনিবার (২০ মার্চ) সকালে সদর হাসপাতালের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মানববন্ধনে রোগীর স্বজন ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা এ ঘটনায় প্যাথলজি বিভাগের ইনচার্জ জাহিদুল ইসলামকে দায়ী করেন এবং এ ঘটনার সাথে জড়িত সকলের শাস্তির দাবি জানান। উল্লেখ্য, লালমনিরহাট সদর উপজেলার দুড়াকুটি গ্রামের রব্বানী ইসলামের স্ত্রী রহিমা বেগম (২৭) শারিরিক রক্তক্ষরণ জনিত কারনে গত ১৪ মার্চ লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি হন। ওই দিনই তাকে রক্ত দিতে হবে বলে জানান কর্তৃপক্ষ। প্যাথলজি বিভাগে রহিমা বেগমের রক্ত পরীক্ষা করে জানানো হয় তার রক্তের গ্রুপ “বি পজিটিভ”। এরইমাঝে সাকলাইন সোহান নামের একজন বি পজিটিভ রক্তদাতা এক ব্যাগ রক্ত দান করেন। তারপর ওই রক্ত রোগীর শরীরে প্রবেশ করার পরেই রোগী অস্থিরতায় ভোগে । হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, যে ডোনারের রক্ত দেওয়া হয়েছে সেই রক্তের তাপমাত্রা ও রোগীর তাপমাত্রা এক না হওয়ায় এ সমস্যা। এরপরের দিন রোগীর আত্নীয় মোকলেছুর রহমান মুকুল নিজেও আরেক ব্যাগ “বি পজিটিভ” রক্ত দান করেন। এই রক্ত প্রয়োগ করার পরে আরো বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন রোগী রহিমা বেগম । তারপর প্যাথলজি বিভাগ থেকে জানানো হয় রক্তের গ্রুপ ভুল হওয়ার কারনেই এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। রোগীর শারিরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকলে ১৮ মার্চ রোগীকে রেফার করা হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রোগীর স্বামী রব্বানী ইসলাম জানান, তার স্ত্রী রহিমা বেগমের অবস্থা বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে বলে চিকৎসক জানিয়েছেন।
লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগের ইনচার্জ জাহিদুল ইসলাম জানান, প্যাথলজি বিভাগের সহকারী মোজাফ্ফরের ভুলের কারনেই এ ঘটনা ঘটেছে। এ কথার সূত্র ধরে প্যাথলজি বিভাগের সহকারী মোজাফ্ফরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, প্যাথলজি বিভাগের ইনচার্জ এ বিষয়টি ভালো জানেন। লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক অসুস্থ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মঞ্জুর মোর্শেদ দোলন বলেন, এ ঘটনায় শনিবার (২০ মার্চ) সিনিয়র কনসাল্টেন্ট (সার্জারী) ডা. আব্দুল হাদীকে প্রধান করেন তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে । আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন আসার পরেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102