মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান মানছেনা বালু দস্যুরা পুর্ব শাহজাদপুর যমুনা জুড়ে ড্রেজার দিয়ে বালু লুট চলছেই

Reportar Name
  • সময় কাল : মঙ্গলবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি 

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পুর্বাঞ্চল খ্যাত খুকনী, জালালপুর, কৈজুরী, গালা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় আবারো শুরু হয়েছে যমুনা নদী থেকে ব্যাপক ভাবে বালু লুট। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে হঠাৎ ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চললেও তা মানছেন না বালুদস্যু সন্ত্রাসীরা। এ নিয়ে উপজেলা প্রশাসনকে অভিযোগ দেয়া হলেও কার্যকরি পদক্ষেপ না থাকায় কোটি-কোটি টাকার বালু নদী থেকে তুলে বালু দস্যু চক্রটি ড্রেজার দিয়ে তুলে বিক্রি অব্যাহত রেখেছে।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড পদক্ষেপ নেবার কথা জানিয়েছে। জানা যায়, শাহজাদপুর উপজেলার পুর্বাঞ্চল খুকনী ইউনিয়নের আড়কান্দি, জালালপুর ইউনিয়য়ের পাকড়তলা-ঘাটাবাড়ি, কৈজুরী ইউনিয়নের পাঁচিল, জকতলা সহ গালা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা হতে অবাদে ড্রেজার দিয়ে কোটি-কোটি টাকার বালু উত্তোলন শুরু করেছে সন্ত্রাসী বালু দস্যুরা। পুলিশ অভিযান চালালেও তা নামে মাত্র সুবিধা আদায়ের জন্য। আর উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান আদালতের যে অভিযান পরিচালনা করছে তাও যথার্থ মনে না করে চক্রটি আবারো শুরু করছে এসব এলাকার নদী হতে বালু উত্তোলন। পুরো যমুনা জুড়ে এ যেন বালু দস্যুদের স্বর্গ রাজ্য। তারা যমুনার এ বালুকে নাম দিেেছ কাচা সোনা। কারণ, বালুর মুল্য সোনার মতই দামী। সামান্য খরচে তা ড্রেজার দিয়ে উত্তোলন করে আশপাশেই চড়া দামেই বিক্রি করছে। অতি লাভের কারনেই সন্ত্রাসীরা কৌশলে বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করে এই বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে। অপরিকল্পিত ভাবে বালু উত্তোলনের ফলে নদী তীরবর্তী বাক্ষ্মনগ্রাম হতে পাঁচিল পর্যন্ত সাড়ে ৬ কিলোমিটার জুড়ে ভাঙ্গন এখন তীব্রতর আকার ধারন করছে। মুহুর্তের মধ্যেই বিলীন হচ্ছে ঘরবাড়ি আর আবাদী জমি। তাই বালু উত্তোলন অবৈধ ভাবে বন্দে দ্রুত কার্যকরি পদক্ষেপ চেয়েছে স্থানীয়রা। এজন্য উপজেলা প্রশাসন বরাবর লিখিত ভাবে অভিযোগও দায়ের করেছে ভুক্তভোগীরা। এরপর গত ২৯ নভেম্বর শাহজাদপুর উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে খুকনীর আড়কান্দিতে চলা ড্রেজারে অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও ড্রেজারটি বন্ধ করে দিয়ে আসে। এরপর আবারো সেখানে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করা হচ্ছে মাটি।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের কাছে পদক্ষেপ চেয়ে অভিযোগ দাখিল কারী রুপসী গ্রামের রুবেল ভুঁইয়া সহ ঘাটাবাড়ি গ্রামের কয়েক জন জানান, ভেবেছিলাম প্রশাসনের অভিযানের পর আর নদী থেকে বালু উত্তোলন হবে না। বাড়ি-ঘর ভাঙ্গন মুক্ত থাকবে। কিন্তু তা নয়। আবারো তারা নির্ভয়ে বালু তোলা শুরু করেছে। আমরা নিষেধ করতে গেলে তারা হত্যার হুমকী দিচ্ছে। এ অবস্থায় আমরা কি করবো ভেবে পাচ্ছিনা।
এদিকে বর্তমানে নদী থেকে বালু তোলা বন্ধে বালু দস্যু ও এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের আশংকা করছে স্থানীয়রা। তাই দ্রুত বালু তোলা বন্ধের জন্য পদেক্ষপ দাবী তাদের।
এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মোহাম্মদ শামসুজ্জোহা জানান, কোথাও অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করতে দেয়া হবেনা। আমরা দ্রুতই আবারো পদক্ষেপ নেব।
এদিকে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন জানান, যমুনা হতে চর কাটা বা বালু কাটার জন্য কোন অনুমতি নেই। তারা অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করছে। যা নিয়ম বহিঃর্ভুত। এজন্য পাউবো কার্যকরি পদক্ষেপ নেবে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

One thought on "ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান মানছেনা বালু দস্যুরা পুর্ব শাহজাদপুর যমুনা জুড়ে ড্রেজার দিয়ে বালু লুট চলছেই"

  1. mp3 says:

    Everything is very open with a clear description of the challenges. It was definitely informative. Your website is very helpful. Thank you for sharing! Alexandrina Hazlett Andrej

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102