মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চরএলাহী ইউনিয়ন শাখা জাতীয়তাবাদী প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের কমিটির অনুমোদন সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবা‌র্ষিকী উপলক্ষে- শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনু‌ষ্ঠিত। সাইয়েদা ইসলাম সুম্মা এক ঘন্টার মেয়র হলেন! সিরাজগঞ্জে রিভালবার ও গুলিসহ ডাকাত চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার কালিয়াকৈর পৌরসভা থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে বিলবোর্ড-ব্যানার অপসারণের নির্দেশ কোনাবাড়ীতে আগুনে পুড়লো হায়দার আলীর ঝুট গুদাম  ঘুষ-দুর্নীতি ও নানা অপকর্মে আলোচিত সেই পিআইও নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে ফের বিভাগীয় মামলা! স্পেনে শেখ রাসেলের জম্মদিন ও শেখ রাসেল দিবস উদযাপন কোনাবাড়ীতে শেখ রাসেলের জন্মদিন পালন  অভয়নগরে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

মোক্তার হোসেন মুক্তা কে পুনরায় নৌকার মাঝি হিসেবে চায় ইউনিয়ন বাসী 

সোহেল রানা সোহাগ :
  • সময় কাল : মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৮৭ বার পড়া হয়েছে
সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার ২ নং বারুহাস  ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের দিন বদলে ও জনগনের সেবার মান উন্নয়নে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবারও দলীয় প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোক্তার হোসেন মুক্তা। তাকে ইউনিয়নের উন্নয়নের অসমাপ্ত কিছু কাজ সম্পুর্ন করতে আবারও নৌকার মনোনয়ন নিয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় ইউনিয়ন বাসী।
 মোক্তার হোসেন বারুহাস ইউনিয়নের বিনোদপুর  গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের
আলহাজ্ব মোঃ ফরমান আলীর  সন্তান ও বর্তমানে ওই ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
জানা গেছে,  ২০১১ সনে ১২ জুনের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মুজিব আদর্শে আদিষ্ঠ হয়ে  ভোটারের ব্যলট ভোটের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ভোটের পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মোঃ মোক্তার হোসেন মুক্তা।  পরে  ২০১৩ সনে তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত হয়ে  দলকে সুসংগঠিত করার জন্য তাড়াশের সকল প্রান্তে প্রতিনিয়ত নিষ্ঠার দায়িত্ব পালন করেন।
২০১৬ সালের ২৩ এপ্রিল আবারও নৌকা প্রতীক নিয়ে দ্বিতীয় বারের মত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে বারুহাস ইউপির সকল উন্নয়ন ও সেবা মুলক কাজে আংশ গ্রহন করে।
মোক্তার হোসেন মুক্তা ছোট বেলা থেকেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর রাজনীতির সহিত সম্পৃক্ত হয়ে বিভিন্ন মিটিং-মিছিল ও সভা সমাবেশে অংশ গ্রহন করেন। ১৯৮৪ সনে তাড়াশ ইসলামিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে পাবনা জেলাধীন চাটমহর ডিগ্রী কলেজে ১৯৮৫ সনে ভর্তি হয়ে ছাত্রলীগ রাজনীতিতে সক্রিয় অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের এজিএস পদে নির্বাচিত হয়,  ১৯৮৬ সনে অত্র কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে, ১৯৮৭ সনে ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে হিসাব বিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তি হয়ে শিক্ষার পাশা পাশি ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় অংশগ্রহন করে,  ১৯৯০ সনে স্বৈরাচার এরশাদ হটানো আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছেন।
এরপর থেকে তিনি নিজ জন্মভূমি সিরাজগঞ্জের তাড়াশের যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতোপ্রোত ভাবে জড়িয়ে পরেন। ১৯৯৬ সনের ১৫ ফেব্রুয়ারীর খালেদা-নিজামীর প্রহসনের নির্বাচন বাতিলের আন্দোলনে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। ২০০১ সনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত প্রার্থী জনাব মোহাম্মদ নাছিম এর পক্ষে তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ এর সন্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে যুবলীগের নেতাকর্মী সঙ্গে নিয়ে দায়িত্ব গুরুত্বপুর্ন দায়িত্ব পালন করেন তিনি। নির্বাচন শেষে চার দলীয় ঐক্য জোট সরকারের নেতা কর্মীদের রোশানলে পরে তাকে অমানবিক দৈহিক নির্যাতন,  দোকানপাট লুন্ঠন ও ঘরবাড়ি সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করে দেয়। এর  দীর্র্ঘদিন এলাকা ছারা হয়ে স্ত্রী, কন্যা, পিতা-মাতা, ভাই-ভগ্নীকে অন্যত্র রেখে পলাতক জীবন কাটান সে । পরবর্তিতে বিরুদ্ধী দলের পরিকল্পিত একাধিক মিথ্যা মামলায় হয়রানী, অর্থদন্ড ও স্বপরিবারে ভাই, ভাইতিজা সহ দীর্ঘদিন হাজত বাস ও করতে হয় তাকে।
মোক্তার হোসেন মুক্তা ২০০৪ সনে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার আহ্বায়ক কমিটিতে তাড়াশ থানা থেকে একমাত্র সদস্য নির্বাচিত হই এবং কেন্দ্রীয় ও জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দের সহিত সিরাজগঞ্জ জেলার প্রতিটি থানায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি করার জন্য সক্রিয় ভূমিকা রাখি এবং ২০০৫ সনে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সহ-সভাপতি, সাধারন সম্পাদক, সাংগাঠনিক সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদকের উপস্থিতিতে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ তাড়াশ উপজেলা শাখার সভাপতি নির্বাচিত
মোক্তার হোসেন মুক্তা বলেন,এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে  দলীয় মনোনয়ন পেলে ইউনিয়নের তরুণ, শিক্ষিত, সচেতন ভোটাদের সাথে নিয়ে ইউনিয়নের গরীব, দুঃখী মেহনতী মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করবো । তিনি আরো বলেন, নৌকা প্রতীক দেওয়া হলে বিজয় সুনিশ্চিত বলে হবে ইনশআল্লাহ।  ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছি।
Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102