মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় পূর্ব শত্রুতার জেরে গৃহবধুকে মারধরের অভিযোগ ইউপি নির্বাচনে নৌকার মাঝি হয়ে শক্ত হাতে বৈঠা ধরবে যুবলীগ নেতা তুহিন উল্লাপাড়ার করতোয়ানদীতে এইচটি ইমাম স্মৃতি ফাইনাল নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত মির্জাপুরে “মানবতার হাতের” উদ্যোগে ফ্রি চক্ষু মেডিকেল ক্যাম্প গাজীপুরে পরকীয়ার জেরে স্ত্রী হত্যা, স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জে জালিয়াতি করে কৃষকের সর্বনাশ কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নার্সদের অবহেলায় ২ শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ কুড়িগ্রামে মসজিদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন কর‌লেন জেলা পরিষদের চেয়ারম‌্যান মহেশখালী ইউপি নির্বাচনে সহিংসতা, নিহত ১ এবং আহত ৪ কোনাবাড়ীতে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ  

রূপগঞ্জে ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা : উভয় পক্ষের থানায় অভিযোগ

মুরাদ হাসান, রূপগঞ্জ :
  • সময় কাল : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়া ইউনিয়নের ব্রাক্ষণগাঁও এলাকার ব্যবসায়ী শাহাদাৎ মোল্লার বাড়িতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২৭ জুলাই মঙ্গলবার রাতে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ১০/১২ সদস্যের একদল সন্ত্রাসী এ হামলা চালায়। হামলাকারীরা বসত ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে টেলিভিশন, মূল্যবান আসবাবপত্র ভাংচুর করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও ব্যাংকের চেক বইসহ মালামাল লুটে নেয়। একপর্যায়ে তাদের ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। হামলায় গৃহকর্তা শাহাদাৎ মোল্লার পিতা শহিদ মোল্লা (৬৫), মা রতœা বেগম (৪৭) ও স্ত্রী রেশমা শারমীন (৩২) আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্যবসায়ী শাহাদাৎ মোল্লা বাদী হয়ে মুড়াপাড়া এলাকার বাবু (২৪), রিয়াজ (২০), মোহাম্মদ আলী (৩৩) ও রাজিবকে (২৪) আসামী করে রূপগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। আসামীদের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনসহ একাধিক মামলা রয়েছে। রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ.এফ.এম সায়েদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে তারাও থানায় পাল্টা অভিযোগ দিয়েছে।তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ## কঠোর লকডাউনেও রূপগঞ্জে চুরি ও ডাকাতি বৃদ্ধি মুরাদ হাসান, রূপগঞ্জ ঃ সারা দেশের ন্যায় রূপগঞ্জেও চলছে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন। লকডাউন বাস্তবায়নে ব্যস্ত উপজেলা প্রশাসন।

আর এ সুযোগে দুষ্কৃতকারীরা ব্যস্ত চুরি, ডাকাতি আর ছিনতাইয়ে। প্রতিদিনই কোনো না কোনো বাড়িঘওে, দোকানটাপে অথবা রাস্তার চুরি , ডাকাতিসহ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। পুলিশ বলছে, লোকবল সঙ্কট আছে। তারপরও লোকজন অভিযোগ নিয়ে থানায় আসলে দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চোর-ডাকাতের উৎপাত দিনদিন বেড়েই চলছে। কখনো বাড়ি-ঘরে, আবার কখনো দোকানপাটে চুরি-ডাকাতির ঘটনা যেনো নিত্যনৈম্যতিক ব্যাপার। সম্প্রতি ৮/১০টি চুরি ও ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও এর প্রতিকার মিলছেনা। ডাকাতির ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করতে চাইলেও চুরির ঘটনা বলে অভিযোগ নেন থানা পুলিশ। এমন অভিযোগও রয়েছে থানা পুলিশের বিরুদ্ধে। বর্তমানে চোর আর ডাকাতের আতংকে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে স্থানীয়রা। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গতকাল সোমবার গভীর রাতে কাঞ্চন পৌরসভার কালাদী এলাকার মোবারক হোসেনের বাড়ির গেইটের তালা কেটে ডাকাত দল বাড়িতে ঢুকে তার ঘরে ও ভাড়াটিয়াদের ঘরের দরজা বাহিরে থেকে তালাবদ্ধ করে দেয় ডাকাত সদস্যরা। যেখানে তালা দেয়ার ব্যবস্থা নেই সেখানে জিআই তার দিয়ে আটকিয়ে দেয়। পরে বাড়ি সংলগ্ন গাড়ির গ্যারেজের ৩টি তালা কেটে ২টি অটো ও ২ দুইটি মিশুক ডাকাতি করে নিয়ে যায় দুধর্ষ ডাকাত দল।

এদিকে গত ২২ জুলাই কাঞ্চন পুলিশ ফাড়ির পাশে স্বর্ণব্যবসায়ী তপন সরকারের দোকানের চালা কেটে ভেতরে ডুকে ডাকাত দল নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার সহ ১৫-২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। দোকানে ফেলে যায় ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামাদি। সাম্প্রতিক সময়ে কালাদী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন মনির হোসেনের বাড়ির গেইটের তালা ভেঙ্গে রানা ভুইয়া ও সামীনুর ভুইয়া নামের দুই ভাড়াটিয়ার ২টি মোটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যায় এই চক্র। প্রতিটি ঘটনায় আলাদা আলাদা ভাবে অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগীরা। তবে ডাকাতির ঘটনাকে চুরির ঘটনা বলে অভিযোগ নেয় থানা পুলিশ। এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। এছাড়া প্রতি ঘটনায় আইনের আশ্রয় চেয়েও ফলাফল পায়নি বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। সম্প্রতি ৮-১০টি চুরি-ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও প্রতিকার হয়নি। তাই চোর-ডাকাত চক্রের ভয়ে একপ্রকার আতংক নিয়েই বসবাস করছে স্থাণীয় মানুষজন। এসব ঘটনায় আইনের সুদৃষ্টি চেয়েছেন ভুক্তভোগী সহ স্থানীয়রা।

এ বিষয়ে ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মাহাবুবুর রহমান জানান, এসব ঘটনা উৎঘাটন করে অভিযুক্তেদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ কাজ করছে। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ এফ এম সায়েদ বলেন, লকডাউন বাস্তবায়নে প্রতিনিয়ত পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। টহল পুলিশও অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে। কেউ সুনির্দিষ্ট অভিযোগ নিয়ে আসলে অবশ্যই অবরাধীদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোনো অপরাধীকে ছাড় দেয়া হবে না। আমাদের লোকবল সঙ্কট রয়েছে সত্য। তারপরও আমরা সব ধরনের অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রেখেছি। ### তারিখ ঃ ২৮.০৭.২১ ইং রূপগঞ্জ প্রতিনিধি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102