• শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সিরাজগঞ্জ সদরে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন অসহায় হাকিম ও আয়শা দম্পতির সহানুভ‚তি নিবাসের উদ্বোধন উল্লাপাড়ায় জামাত নেতার সাথে ছবি ভাইরালের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন ফের আশা জাগাচ্ছে লালদিয়া চর কনটেইনার টার্মিনাল ‘মাই লকারে’ স্মার্টযাত্রা আগামী সপ্তাহে থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর লালমনিরহাটে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী ২০২৪ অনুষ্ঠিত! ব্যাংকের আমানত বেড়েছে ১০.৪৩ শতাংশ সিরাজগঞ্জে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বঙ্গবাজারে দশতলা মার্কেটের নির্মাণ কাজ শুরু শিগগিরই বেঁচে গেলেন শতাধিক যাত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস আজ মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব না খাটানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মুজিবনগর দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী বাস ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ নিহত-১  লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে ইউপি সদস্য আহত গাজীপুরে বয়লার বিস্ফোরণে চীনা প্রকৌশলীর মৃত্যু,আহত ৬ বাংলাদেশী কোনাবাড়ীতে অটোরিক্সার চাপায় ৩ বছরের শিশু মৃত্যু দ্বাদশ সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন বসছে ২ মে

রেমিট্যান্সে জোর সরকারের, আগামী বাজেটে বাড়ছে প্রণোদনা

কলমের বার্তা / ১৬৬ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : শুক্রবার, ২০ মে, ২০২২

নতুন বাজেটে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে ৩ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। প্রতিবন্ধীদের ভাতা ৭৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা করার পাশাপাশি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় সব ধরনের ভাতাভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

৯ জুন ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট জাতীয় সংসদে প্রস্তাব করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ মুস্তফা কামাল। এটি দেশের ৫১তম, আওয়ামী লীগ সরকারের ২২তম এবং বর্তমান অর্থমন্ত্রীর তৃতীয় বাজেট।

নিউজবাংলাকে বৃহস্পতিবার নিজ বাসভবনে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে নতুন বাজেট নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

তিনি বলেন, ‘নতুন বাজেটের আকারসহ অন্যান্য বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলবেন। আমার এ বিষয়ে বলা ঠিক হবে না। তবে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে প্রণোদনা বাড়ানোর ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। আমরা এবার এই প্রণোদনা আড়াই শতাংশ থেকে বাড়িয়ে তিন শতাংশ করব।

‘একই সঙ্গে বয়স্ক, বিধবা ভাতা বৃদ্ধি, প্রতিবন্ধীসহ সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় বিভিন্ন ভাতার আওতা ব্যাপকভাবে সম্প্রসারণ করা হবে। দেশের বিপুলসংখ্যক জনগোষ্ঠী যাতে এসব ভাতা পান তার ব্যবস্থা করার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রতিবন্ধীদের ভাতা ৭৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা করার অনুরোধ করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী তাতে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। বাজেট প্রস্তাবে অর্থমন্ত্রী অবশ্যই এটি বিবেচনা করবেন বলে আশা করছি।’

২০১৯-২০ অর্থবছর অর্থাৎ ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে রেমিট্যান্সে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। ২০২১ সাল পর্যন্ত ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেয়া হয়। ওই সময় পর্যন্ত প্রবাসীরা ১০০ টাকা দেশে পাঠালে ২ টাকা প্রণোদনা পেতেন।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে প্রণোদনা বাড়িয়ে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ করা হয়। প্রবাসীরা এখন ১০০ টাকা দেশে পাঠালে আড়াই টাকা প্রণোদনা পাচ্ছেন।

নতুন বাজেটে প্রণোদনা বাড়িয়ে ৩ শতাংশ করা হলে আগামী ১ জুলাই থেকে ১০০ টাকা দেশে পাঠালে ৩ টাকা প্রণোদনা পাওয়া যাবে।

সরকারের প্রণোদনার পাশাপাশি প্রবাসীদের ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স পাঠাতে উৎসাহিত করতে ব্যাংকগুলোকে অতিরিক্ত প্রণোদনা দেয়ার জন্য নতুন বাজেটে আহ্বান জানানো হবে বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী।

এর ফলে রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়বে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘নভেম্বরে কাতারে বিশ্বকাপ ফুটবল কেন্দ্র করে কাতারসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর অর্থনীতি চাঙা হয়েছে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার কারণেও ফুরফুরে মেজাজে আছে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর অর্থনীতি। আমাদের বিপুলসংখ্যক প্রবাসী এসব দেশে কাজ করেন। গত এক বছরে কয়েক লাখ লোক নতুন করে সেখানে গেছেন। সব মিলিয়ে আগামী দিনগুলোতে আমাদের রেমিট্যান্স আরও বাড়বে বলে আমি মনে করি।’

মান্নান বলেন, ‘যে যাই বলুক না কেন বাংলাদেশের অর্থনীতি শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে আছে। আর এতে অবদান রেখেছে তিনটি খাত- কৃষি, শিল্প ও রেমিট্যান্স। করোনা অতিমারি এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যেও চলতি অর্থবছরের ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) রপ্তানি আয়ে ৩৬ শতাংশের মতো প্রবৃদ্ধি হয়েছে। রেমিট্যান্স কমলেও কয়েক মাস ধরে বাড়ছে। রোজার ঈদের আগে এপ্রিল মাসে ২ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। সামনে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখেও রেমিট্যান্স বাড়বে।

‘আমদানি বাড়ার পরও আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪২ বিলিয়ন ডলারে অবস্থান করছে। এই রিজার্ভ দিয়ে ছয় মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব। এরপরও যারা বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তুলনা করেন, তারা বিজ্ঞানসম্মত কথা বলছেন না।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘করোনার পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেল, খাদ্যপণ্যসহ সব ধরনের পণ্যের দাম বাড়ছে। যার প্রভাব বাংলাদেশেও পড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও মূল্যস্ফীতি বাড়ছে। তবে গতকাল (বুধবার) কিছুটা স্বস্তির তথ্য দিয়েছে আমাদের পরিসংখ্যান ব্যুরো। বিবিএস বলেছে, এপ্রিল মাসে খাদ্য মূল্যস্ফীতি সামান্য কমেছে।’

‘বিশ্ব পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে আমরা এখন মূল্যস্ফীতি সহনীয় রাখাটাকেই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। নতুন বাজেটে এই বিষয়টিকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হবে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে অসহায় গরিব মানুষকে সহায়তার পাশাপাশি কৃষির উৎপাদন বাড়াতে সার, সেচ, বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন খাতে ভর্তুকি অব্যাহত রাখা হবে।’

বিবিএসের হিসাবে এপ্রিল মাসে সার্বিক মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। এর মধ্যে খাদ্য মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ। আগের মাস মার্চে এই হার ছিল ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বাজারের উত্তাপ বিবিএসের তথ্যে প্রতিফলিত হচ্ছে না; বাস্তবে মূল্যস্ফীতি এর চেয়ে অনেক বেশি।

এ বিষয়ে এম এ মান্নান বলেন, ‘বিবিএস সারা দেশ থেকে যে তথ্য সংগ্রহ করে তার ভিত্তিতেই মূল্যস্ফীতির হিসাব করে থাকে। এখানে অন্য কোনো কিছু ভাবার কারণ নেই। তবে এ কথা ঠিক যে বিবিএস ২০০৫-০৬ অর্থবছরকে ভিত্তি বছর ধরে মূল্যস্ফীতির হিসাব করে। ভিত্তি বছরটা অনেক পুরোনো। আমরা খুব শিগগিরই এই ভিত্তি বছর পরিবর্তন করব।’

নতুন অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার কত ধরা হবে-এ প্রশ্নের উত্তরে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি, বাজেটের আকার, জিডিপি প্রবৃদ্ধিসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে অর্থমন্ত্রী ভাবছেন; আমি আমার মন্ত্রণালয়ের অধীন বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) কথা বলতে পারি। গত মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (এনইসি) সভায় আড়াই লাখ কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। নতুন এডিপিতে মেগা প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

‘চলতি অর্থবছরের ৯ মাসের (জুলাই-মার্চ) হিসাবে ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। ১২ মাসের পুরো হিসাব পাওয়া গেলে সেটা হয়তো সাড়ে ৭ শতাংশ হতে পারে; ৮ শতাংশে গিয়েও পৌঁছাতে পারে। বর্তমান বিশ্ব প্রেক্ষাপট এবং দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির এই ইতিবাচক ধারা বিবেচনায় রেখেই অর্থমন্ত্রী নতুন বাজেটের জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য নির্ধারণ করবেন।’

83


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর