বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার পদোন্নতি প্রাপ্ত হওয়ায় বদলিজনিত বিদায় সংবর্ধনা দিলেন পৌরসভা জাতীয় শোক দিবসে কাজিপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আলোচনা সভা সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় জাতীয় শোক দিবস পালিত বেতাগীতে ইউপি সদস্য শামীম খানের হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ঝালকাঠিতে কবি লিটন তালুকদারের কাব্য গ্রন্থ “সফেদ ক্যানভাসে রক্তের ছোপ” এর মোড়ক উন্মোচন লালমনিরহাটে অপরাধী’র পক্ষ নিল প্রধান শিক্ষক! লালমনিরহাটে সাংবাদিকদের হামলার প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন! শোক দিবস উপলক্ষে শিয়ালকোল ইউপির চেয়ারম্যান শেখ সেলিম রেজা’র হুইল চেয়ার বিতরণ কাশিমপুরে ককটেল ফাটিয়ে রকেট এজেন্টের টাকা ছিনতাই  মূল্যবান খনিজ আহরণে নজর পেট্রোবাংলার

শাহজাদপুরে শতাধিক বাদ্যকার পরিবারের করুণ অবস্থা

কলমের বার্তা ডেস্ক :
  • সময় কাল : মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০
  • ১৮৭ বার পড়া হয়েছে।

আজিজুর রহমান মুন্না, সিরাজগঞ্জঃ

করোনার ক্রান্তিকালে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে বাদ্যকারদের জীবন অচল হয়ে পড়েছে। এদের কোন কাজ-কর্ম না থাকায় শাহজাদপুরে প্রায় শতাধিক বাদ্যকার পরিবার পরিজন নিয়ে চরম দূর্বিষহ জীবন-যাপন করছে। অনেক বাদ্যকার এ পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় চলে যেতে দেখা গেছে। জানা গেছে, প্রায় ৩ মাস ধরে বাদ্যকারদের কোন উৎসব না থাকায় তাদের চোখে মুখে এখন হতাশার চিহ্ন।

মঙ্গলবার (৯জুন) বিকেলে শাহজাদপুর পুকুরপাড় মহল্লার সমেশ খাঁ, করিম খাঁ, ছালাম খাঁ, বাবলু খাঁ, আল-মাছ, রফিক, বেল্লাল, জিতেন দাস, লাকি, বাচ্চু খান জানান, করোনার প্রভাবে কোন উৎসব না থাকায় আমরা বাদ্য বাজনা বাজাতে পারছি না। এই কয়েক মাসে হিন্দু-ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বেশি পূজা ও বিয়ের অনুষ্ঠান পালিত হতো। প্রতি বছরই এই দিনে আমরা পূজা ও বিয়ে অনুষ্ঠানে বাদ্য বাজনা বাজিয়ে অনেক আয়-রোজগার করতাম। অথচ করোনা যেন আমাদের ‘বিনা মেঘের বজ্রপাতের মতো’ আজ আমাদের কোন উৎসব নাই, আমরা কোন অনুষ্ঠানে যেতে পারছি না এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে বিভিন্ন দিবস ও আনন্দ মিছিল থাকলেও সেসব অনুষ্ঠান নিষেধ থাকায় এগুলো অনুষ্ঠান আমরা বাদ্য বাজনা বাজাতে পারছিনা। তাদের অভিযোগ, অনেকেই গোপনে গোপনে বিয়ে সাদি সম্পন্ন করছে। ভয়ে তারা কোন উৎসব পালন করছে না। প্রায় ৩ মাস ধরে কোন একটি ঢোলের বাজনা শাহজাদপুরে শোনা যায়নি। মানুষের মনে শুধু আতঙ্ক। বাদ্যকারা আরও জানান, সরকারিভাবে কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান সহযোগিতা পেলেও আমাদের আজ পর্যন্ত কেউ সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় নি। তাই বাধ্য হয়ে অনেকেই এই পেশা ছেড়ে রিকশা চালাচ্ছে, কেউ ফুটপাতে দোকান দিয়েছে, কেউবা দিনমুজুরীর কাজ করছে। অভাব এখন আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী। তাদের দাবি শাহজাদপুর যতগুলো বাদ্যকার আছে তাদের বিশেষভাবে সহযোগিতার জোর দাবি জানান। নয়তো পরিবার পরিজন নিয়ে রাস্তায় বের হতে হবে।

Spread the love

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102