বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন

সলঙ্গায় ২ সন্তানের জননীর পরকীয়া, স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

সলঙ্গা প্রতিনিধি
  • সময় কাল : শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১
  • ৪৪০ বার পড়া হয়েছে

সলঙ্গায় ২ সন্তানের জননীর পরকীয়া স্বামীর বাড়িতেই অবস্থান করে পরকীয়া প্রেমিক কে বিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে সলঙ্গা থানার হাটিকুমরুল ইউনিয়নের চরিয়া শিকার দাদনপুর গ্রামে। জানাযায় , প্রায় ৫ বছর আগে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয় সলঙ্গা থানার গোপীনাথপুর গ্রামের অছাব আলীর মেয়ে মাকসুদা খাতুন (২৭) ও চরিয়া শিকার দাদনপুর গ্রামের মৃত মোঃ গোলাম হোসেনের ছেলে মুকুল হোসেনের (৩২)সংসার জীবনে মুকুল ও মাকসুদার তিন বছর ও দের বছরের দুটি ছেলে সন্তানও রয়েছে।

মুকুল হোসেন একটি ঔষধ কোম্পানিতে চাকরি কারার সুবাদে ঢাকায় থাকেন। এই সুযোগে রশিদপুর টারুটিয়া গ্রামের রহিম উদ্দিনের ছেলে রজব আলীর (৩৬) এর সাথে ২ সন্তানের জননী মাকসুদার পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত তিন মাস আগে মাকসুদা খাতুন গোপনে মুকুল হোসেনকে ডিভোর্স দিয়ে রজব আলী কে বিয়ে করে দাদনপুর গ্রামে মুকুল হোসেনের বাড়িতেই স্বাভাবিকভাবেই স্বামী স্ত্রী হিসেবে আবস্থান করছিলেন। গতকাল ৬/৪/২১ ইং বৃহস্পতিবার রজব আলী সলঙ্গা থানায় বাদী হয়ে তার স্ত্রী মাকসুদাকে ৩ মাস যাবৎ জোরপূর্বক মুকুল হোসেন বাড়িতে আটকে রেখেছেন মর্মে অভিযোগ দায়ের করেন।

এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে মাকসুদা খাতুন দুধের বাচ্চাকে রেখে স্বামীর বাড়ি থেকে পালিয়ে যেতে চাইলে মুকুলের পরিবারের লোকজন টের পেয়ে মাকসুদাকে আবার বাড়িতে এনে গোপনে বুঝাতে থাকে। এরই মধ্যেই সন্ধায় সলঙ্গা থানা পুলিশ অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য মুকুলের বাড়িতে এলে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় হুলুস্থুল কান্ড বেধে যায়। এ নিয়ে এখন দাদনপুর এলাকায় এখন চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে মাকসুদা জানান, আমার অন্যত্র বিয়ে হয়েছে আমার যেখানে বিয়ে হয়েছে আমি সেখানেই থাকতে চায়। রাতে হাটিকুমরুল ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কাওছার আলী ও এলাকাবাসী ও মাকসুদার পরিবারের উপস্থিতিতে মাকসুদা বড় সন্তানকে রেখে দুধের শিশুটিকে নিয়ে রজব এর বাড়িতে চলে যায়। এ বিষয়ে সলঙ্গা থানার উপপরিদর্শক এস আই সোহাগ হোসেন জানান, আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পাড়ি মাকসুদা তার স্বামীর বাড়িতেই অবস্থান করে দ্বিতীয় স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে গোপনে রজবকে বিয়ে করে। রজব আলী থানায় মুকুলের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছে কিন্তু অভিযোগের সাথে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়নি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর
themesba-lates1749691102