শিরোনামঃ
আশা জাগাচ্ছে বায়ুবিদ্যুৎ ডিসেম্বরে ঘুরবে ট্রেনের চাকা মূল্যস্ফীতি হ্রাসে ব্যাংক থেকে ঋণ কমাতে চায় সরকার বদলে যাবে হাওরের কৃষি বাংলাদেশে নতুন জলবায়ু স্মার্ট প্রাণিসম্পদ প্রকল্প চালু যুক্তরাষ্ট্রের ‘তথ্য দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে ৩ জন মুখপাত্র নিয়োগ দেওয়া হয়েছে’ অস্বস্তি কাটিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সম্পর্কে নতুন মোড় এমপিদের শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানি সুবিধা উঠে যাচ্ছে ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতা দূর ৫০০ একর খাসজমি বরাদ্দ স্বাধীনতাবিরোধীদের পদচিহ্নও থাকবে না: রাষ্ট্রপতি আজ জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী দশতলা বিল্ডিং এর ছাদ থেকে লাফ দিয়ে নারী পোশাক শ্রমিকের মৃত্যু বাগবাটি রাজিবপুর অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী স্কুলে হুইল চেয়ার বিতরণ সিরাজগঞ্জ পৌরকর্মচারী ইউনিয়নের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত  কাজিপুর খাদ্য গুদামে অভ্যন্তরীণ বোরো -ধান চাউল সংগ্রহ এর উদ্বোধন আদিতমারীতে ধান-চাল ক্রয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঠাকুরগাঁওয়ে শিশু নিবির হত্যা মামলায় গ্রেফতার আরেক শিশু বেনাপোল সীমান্তের চোরা পথে ভারতে যাবার সময় মিয়ানমার নাগরিকসহ আটক-৪ বিয়েতে রাজি না হওয়ায় আত্নহত্যা, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে হত্যা মামলা সিরাজগঞ্জে সাংবিধানিক ও আইনগত অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

হাইকোর্টের এক বেঞ্চে একদিনে রেকর্ড ১৪৯৮ রুল নিষ্পত্তি

কলমের বার্তা / ১৪৫ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২২

২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত সময়ে জামিন সংক্রান্ত এক হাজার ৪৯৮টি রুল নিষ্পত্তি করে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। বুধবার (২০ এপ্রিল) হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।

রায়ের আগে আদালত বলেন, এক হাজার ৪৯৮টি মামলায় যারা জামিনের অপব্যবহার করেননি, যাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ নেই তাদের ক্ষেত্রে রুল যথাযথ ঘোষণা করা হলো। যাদের জামিন বাতিল হয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে রুল খারিজ করা হলো।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, এ মামলাগুলোতে আসামিরা জামিন নেওয়ার পর ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ পর্যন্ত বিভিন্ন ব্যক্তির জামিন সংক্রান্ত এক হাজার ৪৯৮টি রুল করোনাসহ নানা কারণে দীর্ঘদিনেও আর শুনানির উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এমনকি আইনজীবীরাও শুনানির পদক্ষেপ নেননি। ফাইলগুলো পড়েছিল আদালতের সংশ্লিষ্ট শাখায়।

সম্প্রতি প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী হাইকোর্টের মামলাজট নিরসনের উদ্যোগ নেন। তার অংশ হিসেবে প্রধান বিচারপতির নির্দেশে ফাইল খুঁজে বের করে নিষ্পত্তির দায়িত্ব দেওয়া হয় বিচারপতি শেখ হাসান আরিফের নেতৃত্বাধীন দ্বৈত বেঞ্চকে। তিনদিন লাগে মামলাগুলোর ফাইল খুঁজে বের করতে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবীরা এটিকে মহতি উদ্যোগ বলে উল্লেখ করেছেন। তারা বলছেন, দেশের উচ্চ আদালতে এমন অসংখ্যা মামলা রয়েছে। যে মামলাগুলো বছরের পর বছর পড়েছে। কোনো পক্ষই শুনানির উদ্যোগ নেন না। এসব মামলার আধিক্য বাড়াচ্ছে মামলার বোঝা। মামলার জট কমাতে এমন উদ্যোগ যুগান্তকারী।

109


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর