• বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০১:২৬ পূর্বাহ্ন

রেল বিভাগের ৫৭ লাখ ৬ হাজার ৩৭৩ টাকা বিদ্যুৎ বিল বাকী থাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন নেসকোর!

কলমের বার্তা / ৩২ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : বুধবার, ২৬ জুন, ২০২৪

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট: লালমনিরহাট রেল বিভাগের ৫৭ লাখ ৬ হাজার ৩৭৩ টাকা বিদুৎ বিল বাকী থাকায় পুরো রেলওয়ে বিভাগের আওতাধীন সকল বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে নেসকো। এ ঘটনায় রেল অঙ্গন সহ পুরো জেলা শহরে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

নেসকো সূত্রে জানা গেছে, লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগের গত ৩ মাসের বিদ্যুৎ বিল ৫৭ লাখ ৬ হাজার ৩৭৩ টাকা বকেয়া আসে। বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য নেসকো কতৃপক্ষ বারবার নোটিশ দিয়ে তাগিদ দিয়ে আসছে। ৫৭ লাখ ৬ হাজার ৩৭৩ টাকা রেলওয়ের কাছে বকেয়া থাকায় লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়। রেলওয়ের পাওয়ার হাউস হতে পুরো রেলবিভাগে বিদ্যুত সংযোগ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এখানে নেসকো কতৃপক্ষের সংযোগ ও মিটার রয়েছে।

বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন করায় রেলওয়ে হাসপাতাল, রেলওয়ে স্টেশন, রেলওয়ে ডিভিশনাল দপ্তর, রেলওয়ে কর্মকর্তা কর্মচারী আবাসিক কোয়ার্টার, রেলওয়ে লোকসেড, রেলওয়ে ক্যারেজ, রেলওয়ে বৈদ্যুতিক সিগনাল ব্যবস্থা, রেলওয়ে টেলিফোন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যায়, রেলওয়ে কম্পিউটার টিকেট সিস্টেম বিঘ্ন ঘটে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রেলওয়ে বিভাগীয় স্টেশনে অপেক্ষমাণ যাত্রী সাধারণ প্রচণ্ড গরমে চরম দুর্ভোগের সৃস্টি হয়েছে। জেনারেটরের সাহায্যে ঢাকাগামী ট্রেনসহ আন্তঃনগর অন্যান্য ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। সন্ধার পরপর অন্ধকারে রেল অঙ্গনে ভুতুরি পরিস্থি সৃস্টি হয়। যাত্রীরা মোবাইল ফোনের লাইট জ্বালিয়ে ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনে ওঠা-নামা করতে দেখা গেছে। রেলওয়ে স্টাফ কোয়ার্টারের বসবাসরত শিশু ও বয়োবৃদ্ধ ব্যক্তিরা পরে মহা বিপাকে। রেলওয়ে ২৫ বেডের হাসপাতালে অন্ধকারে কার্যক্রম মুখথুবড়ে পরে।

লালমনিরহাট রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার নুরুন্নবী ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় হঠাৎ বিদ্যুৎ চলে যায়। প্রথমে বিষয়টি স্বাভাবিক মনে হয়েছিল। পরে খোঁজ নিয়ে দেখি সবখানে বিদ্যুৎ রয়েছে শুধু রেল অঙ্গনে নেই। রেল বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকতাদের বিষয়টি জানাই। তখন জানতে পারি বকেয়া বিলের কারণে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।
লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় বৈদ্যুতিক কর্মকর্তা খায়রুল আলম বলেন, বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। রাস্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান রেলওয়ে। এটা জনগণের প্রতিষ্ঠান। আছে রেলওয়ে হাসপাল সহ গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান। জনগণ সহ রেলওয়ের নিরাপত্তার বিষয় এখানে জড়িত। বিষয়টি নিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ চলছে। এমন পরিস্থিতি রেল অঙ্গনে প্রথম।

লালমনিরহাট নেসকোর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রশান্ত কুমার রায় বলেন, গত ৩ মাস থেকে বিদ্যুৎ বিল রেল বিভাগের কাছে বকেয়া পড়েছে । বিল পরিশোধের জন্য একাধিকবার দাপ্তরিক চিঠি দিয়ে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। মোট ৫৭ লাখ ৬ হাজার ৩৭৩ টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। ফলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। বিল পরিশোধের আশ্বাস পেয়ে পুনরায় রাতে সংযোগ দেওয়া হয়েছে।

5
Spread the love


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর