শিলাইদহ কুঠিবাড়ির ব্যাপক উন্নয়নে কাজ করছে সরকার: স্পিকার

কলমের বার্তা / ১৬১ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : সোমবার, ৯ মে, ২০২২

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়ির ব্যাপক উন্নয়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘বিশ্বকবির স্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়ির ঐতিহ্য ও গৌরব বিরল। এটা আমাদের গর্ব। কুঠিবাড়ি সম্পর্কে যেন দেশ-বিদেশের মানুষ জানতে পারেন, গবেষণা করতে পারেন—এর গুরুত্ব অনুধাবন করে সরকার নিশ্চয়ই এর আরও উন্নয়নে কাজ করছেন। সরকারের কাছে আমারও এমনই প্রত্যাশা।’

আজ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্বকবির স্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়িতে জাতীয় পর্যায়ে তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে স্পিকার সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, প্রতিবছর রবীন্দ্র জন্মবার্ষিকী নতুনের বার্তা নিয়ে আসে, যা কালের আবর্তে কখনো মলিন হয় না। প্রাণে নিয়ে আসে উচ্ছ্বাস, উদ্দীপনা ও উচ্ছলতা। তিনি বলেন, রবীন্দ্রনাথ বাংলাদেশের সৌন্দর্য মুগ্ধ হয়েছেন, রচনা করেছেন—‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’, যেটিকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের জাতীয় সংগীত হিসাবে নির্বাচন করেছেন।

স্পিকার বলেন, বাঙালির আবেগ-অনুভূতি, সুখ-দুঃখ, প্রেম-বিরহ, আনন্দ-বেদনা প্রভৃতি স্থান খুঁজে পায় রবীন্দ্র লেখনীতে। ‘সত্য ও সুন্দর সবসময় বিরাজ করে’- রবীন্দ্রনাথ এটি ধারণ করতেন।

তিনি বলেন, বিশ্বায়নের এ যুগে যে সংকট, অশান্তি যুদ্ধাবস্থা, সমাজের সকল অনাচার-অবিচার দূরীকরণ এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আমাদের কবির কাছ থেকে অনেক কিছু জানার ও শেখার রয়েছে। তিনি এসময় কবির লেখনী থেকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত হয়ে নতুন প্রজন্মকে দেশ গড়ায় আত্মনিয়োগের আহবান জানান।

এর আগে জাতীয় সংসদের স্পিকার কুঠিবাড়িতে পৌঁছে ঐতিহাসিক বকুল তলায় একটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন। পরে কুঠিবাড়ি চত্ত্বরে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তিনি।

আলোচনা সভার আগে বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজোয়ানা চৌধুরী বন্যার নেতৃত্বে শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীদের পরিবেশনায় জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। বিকালে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবুল মনসুর, স্বারক বক্তৃতা করেন প্রফেসর সনৎ কুমার সাহা, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

94
Spread the love


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর