• শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সিরাজগঞ্জ সদরে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন অসহায় হাকিম ও আয়শা দম্পতির সহানুভ‚তি নিবাসের উদ্বোধন উল্লাপাড়ায় জামাত নেতার সাথে ছবি ভাইরালের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন ফের আশা জাগাচ্ছে লালদিয়া চর কনটেইনার টার্মিনাল ‘মাই লকারে’ স্মার্টযাত্রা আগামী সপ্তাহে থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর লালমনিরহাটে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী ২০২৪ অনুষ্ঠিত! ব্যাংকের আমানত বেড়েছে ১০.৪৩ শতাংশ সিরাজগঞ্জে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বঙ্গবাজারে দশতলা মার্কেটের নির্মাণ কাজ শুরু শিগগিরই বেঁচে গেলেন শতাধিক যাত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস আজ মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব না খাটানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মুজিবনগর দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী বাস ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ নিহত-১  লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে ইউপি সদস্য আহত গাজীপুরে বয়লার বিস্ফোরণে চীনা প্রকৌশলীর মৃত্যু,আহত ৬ বাংলাদেশী কোনাবাড়ীতে অটোরিক্সার চাপায় ৩ বছরের শিশু মৃত্যু দ্বাদশ সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন বসছে ২ মে

সীতাকুণ্ডে আগুন: চাকরি পাবেন নিহতদের সন্তানরা

কলমের বার্তা / ১৭১ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : সোমবার, ৬ জুন, ২০২২

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ডে যারা মারা গেছে তাদের ক্ষতিপূরণসহ তাদের ছেলেদের চাকরি ও যারা আহত হয়েছে তাদের আমৃত্যু ক্ষতিপূরণসহ চাকরি দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (৫ জুন) বিকেলে স্মার্ট গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান চিটাগাং ডেনিমস মিল্ক লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মেজর অব. সামসুল হায়দার সিদ্দিকী এ ঘোষণা দেন। আগুন লাগার ১৭ ঘণ্টা পর তিনি ঘটনাস্থলে যান। বিএম কনটেইনার স্মার্ট গ্রুপের আরেকটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।

সামসুল হায়দার সিদ্দিকী বলেন, আমি মিডিয়াতে খবর দেখে ঢাকা থেকে এইমাত্র এসেছি। এসেই যারা মারা গেছে এবং যারা আহত হয়েছে তাদের তালিকা করতে নির্দেশ দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমি এসেই তদন্ত কমিটি গঠন করতে বলেছি। যারা মারা গেছে তাদের আর্থিক সহায়তাসহ তাদের ছেলেদের চাকরি দেওয়া হবে। আর যারা আহত হয়েছে তাদেরকে আমৃত্যু ক্ষতিপূরণসহ চাকরি দেওয়া হবে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কন্টেইনারে একের পর এক বিকট বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহু দূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে। আগুন নেভাতে সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা একযোগে কাজ করছেন। এখনো বিভিন্ন কনটেইনারে আগুনের লেলিহান শিখা দেখা যাচ্ছে। ঘটনাস্থলে যৌথভাবে কাজ করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন, সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রশাসন, র‌্যাব, সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, রেড ক্রিসেন্ট, সিপিপি ও স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠনের কর্মীরা। অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জন হয়েছে। দগ্ধ ও আহত দুই শতাধিক ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

98


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর