মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:৫২ অপরাহ্ন

পদ্মা সেতুতে প্রতি মাসে টোল আদায় হবে ১৫০ কোটি টাকা

কলমের বার্তা ডেস্ক :
  • সময় কাল : বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০২২
  • ১৫ বার পড়া হয়েছে।

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর জন্য আর বাজেট বরাদ্দ লাগছে না। আজ ৯ জুন সংসদে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। প্রস্তাবিত বাজেট পাস হওয়ার আগেই আগামী ২৫ জুন বহু কাক্সিক্ষত গৌরবের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৬ জুন থেকে সেতুর ওপর দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হবে। সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, সেতু ব্যবহারকারী বিভিন্ন ধরনের গাড়ি থেকে প্রতি মাসে টোল আদায় হবে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা।

অর্থাৎ বছরে দেড় হাজার কোটি টাকার অতিরিক্ত রাজস্ব সরকারের কোষাগারে যোগ হবে। সমৃদ্ধির প্রতীক পদ্মা সেতুর আয় দিয়ে সারাদেশে গড়ে উঠবে নতুন নতুন অবকাঠামো। এছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একটি স্বপ্নের সফল বাস্তবায়ন হচ্ছে আজকের পদ্মা সেতু। নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত হওয়ায় সেতু থেকে আয় হওয়া রাজস্বের সবটুকু দেশেই বিনিয়োগ হওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। বিদেশী অর্থে করা হলে ঋণ ও সুদ পরিশোধে বড় অংশ ব্যয় করতে হতো।

এদিকে ‘২০১৪-২০২২ সাল’-মাত্র আট বছরের ব্যবধানে দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়েছে। এর আগে সেতু নিয়ে দেশীয়-আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র ও বিতর্ক মোকাবেলা করতে হয়েছে সরকারকে। তবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের নবেম্বর মাসে। আর এ কারণে ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেটে প্রথমবারের মতো সরকার পদ্মা সেতুর জন্য বাজেট বরাদ্দ দিয়েছিল। সেই থেকে শুরু হয়ে দ্রুতগতিতে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। শুরুতে দেশের শীর্ষ পর্যায়ের কয়েকজন অর্থনীতিবিদ ও শিল্পোদ্যোক্তা পদ্মা সেতুর জন্য এই অর্থ বরাদ্দ করায় সামাজিক ও অবকাঠামো খাতে অন্যান্য অগ্রাধিকারভিত্তিক প্রকল্প ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। তাদের সেই আশঙ্কার মধ্যেই দ্রুত এগিয়ে চলেছে সেতু নির্মাণের কাজ। এবার উদ্বোধনের পালা। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী ২৫ জুন প্রধানমন্ত্রী স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন। এরপরই সেতুটি যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে। সব ধরনের ষড়যন্ত্র ও বিতর্ক মোকাবেলা করে সমৃদ্ধির প্রতীক পদ্মা সেতু এখন আরও স্বপ্ন নয়, বাস্তব। পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার তাদের আরেকটি নির্বাচনী অঙ্গীকার পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে।

Spread the love

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102