মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:৪৯ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে সার্কাসের নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য!

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট:
  • সময় কাল : শনিবার, ৪ জুন, ২০২২
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে।

লালমনিরহাটের হাতিবান্ধা উপজেলার ডাকালীবান্ধায় “দি সাধনা” লায়ন্স সার্কাসে নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য। সাধারণ জনগণ অভিযোগ তুলছে সার্কাস পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে। ব্যাঘাত ঘটছে ওই এলাকার শিক্ষার্থীদের পড়াশুনায়।

জানা যায়, গত ২৮শে মে হাতিবান্ধার ডাকালীবান্ধা বাজার সংলগ্ন মাঠে দি সাধনা লায়ন্স সার্কাস চালানোর অনুমতি দেয় লালমনিহাট জেলা প্রশাসন।

গত ৩১ শে মে একই এলাকার খয়বর মেম্বারের নেতৃত্বে দি সাধনা লায়ন্স সার্কাস চালু হয়। শুরু থেকে সার্কাসটি খেলা দেখানোর কথা থাকলেও তারা দিনে তিনটি শোতে দেখাচ্ছেন অশ্লীল নৃত্য। রাত যত গভির হয় সার্কাসে অশ্লীলতা তথ বেরে যায়। এতে উঠতি বয়সি কমলমতি শিশুদের মনে পড়ছে বিরুপ প্রভাব।

দি সাধনা লায়ন সার্কাস অনুমতির সময় লোকালয় থেকে দুরে চালানোর কথা থাকলেও ডাকালীবান্ধা বাজারের পাশেই স্টেজ করে চলছে সার্কাস। পাশেই রয়েছে মসজিদ, আজানের সময়েও তারা বিকট শব্দে চালাচ্ছেন সার্কাসের গান বাজনা। এতে স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। যে কোন মহুর্তে হতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

ডাকালীবান্ধা এলাকার এসএসসি পরিক্ষার্থী আওলাদ জানান, আগামী ১৯শে জুন আমার এসএসসি পরিক্ষা, প্রায় ২০ জন পরিক্ষার্থী আছে এই এলাকায়। আমরা সার্কাসের গান বাজনার আওয়াজের কারনে পড়াশুনা করতে পারছি না। রাতে যখনি পড়তে বসি তখনি শুরু হয় সার্কাসের গান বাজনা। তাই আমরা প্রশাসনের কাছে সার্কাস বন্ধের জোর দাবি জানাচ্ছি।

একই এলাকার ডাঃ এনামুল বলেন, বিকট শব্দে আমাদের নামাজ পড়তে সমস্যা হয়, এমনকি আজানের সময়ও তারা গান বাজনা চালায়। রাতে এখানে অসামাজিক কার্যকলাপও হচ্ছে। জেলার বিভন্ন এলাকা থেকে মানুষ এসে নর্তকীদের নাচায়। এমন কি দু-দুইবার মারামারি হয়েছে। এখনি যদি সার্কাস বন্ধ না করা হয় তাহলে যে কোন মূহুর্তে বড় ধরনের সহিংসতা ঘটে যেতে পারে।

সার্কাস পরিচালনা কমিটির অন্যতম সদস্য খয়বর মেম্বার বলেন, ডিসি সাহেব ও আমাদের স্হানীয় এমপি সাহেব সার্কাস চালানোর অনুমতি দিয়েছে। তাই আমরা সার্কাস চালাচ্ছি। গভীর রাত পর্যন্ত সার্কাস চলছে এবিষয়ে প্রশ্ন করলে কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।

এবিষয়ে হাতিবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, সার্কাসের নামে অশ্লীল কিছু হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টি আমি গুরুত্ব সহ কারে দেখছি।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, সার্কাস চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে কিন্তু অশ্লীল কোন গান বাজনার অনুমতি দেয়া হয়নি। এধরণের কোন কিছু হলে সার্কাস বন্ধ করে দেওয়া হবে।

Spread the love

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।  About Us | Contact Us | Terms & Conditions | Privacy Policy
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102